Thursday, June 1, 2023
Homeচিত্র বিচিত্রদুবাইয়ে আকাশচুম্বী ‘ফটোফ্রেম’

দুবাইয়ে আকাশচুম্বী ‘ফটোফ্রেম’

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

নতুন আইফোনে অপরিবর্তিত থাকবে ক্যামেরা ও ডিসপ্লে

বার্তাকক্ষ আইফোন ১৫ প্রো ম্যাক্সের উন্মোচনকে ঘিরে ব্যাপক আগ্রহ জেগেছে অ্যাপলপ্রেমীদের মধ্যে। সম্প্রতি স্মার্টফোনবিষয়ক তথ্যদাতা...

সেলফ রিপেয়ার প্রোগ্রাম চালু করছে স্যামসাং

বার্তাকক্ষ সেলফ রিপেয়ারিং প্রোগ্রামের বিষয়ে বর্তমানে অনেকেই অবগত। বিশ্বের সব দেশে সেভাবে এটি চালু না...

সাড়ে ৪৩ কোটি ডলার বিনিয়োগ চায়না টেলিকমের

বার্তাকক্ষ কোয়ান্টাম ইনফরমেশন টেকনোলজি গ্রুপ প্রতিষ্ঠায় ৩০০ কোটি ইউয়ান বা ৪৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার...

এমএসআইয়ের নতুন ল্যাপটপ স্টেলথ ১৬ মার্সিডিজ-এএমজি

বার্তাকক্ষ জার্মানির অন্যতম গাড়ি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান মার্সিডিজের সঙ্গে চুক্তি করেছে তাইওয়ানের প্রযুক্তি কোম্পানি মাইক্রো স্টার...

যুগ যুগ ধরে কোনো স্মৃতিকে সংরক্ষণ করার মাধ্যম হচ্ছে ফটোকে ফ্রেমে বন্দি করে রাখা। জীবনের কিছু মূল্যবান স্থির সময়কে আঁকড়ে রাখে ‘ফটোফ্রেম’। ফটো ফ্রেমবন্দি করে সংরক্ষণ করার প্রচলন অনেক পুরনো রীতি। ঘরের সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য নান্দনিকভাবে উপস্থাপন করার মাধ্যম হল ফটোফ্রেম। তাই যেমন তেমন নয়, বেশ বুঝে-শুনে পছন্দ করেই আমরা বাঁধিয়ে রাঁখি জীবনের সেই মূল্যবান কিছু সময়কে। কিন্তু অনেকেরই হয়তো জানা নেই দুবাইতে পৃথিবীর সবথেকে বড় আকাশচুম্বী এক ফ্রেম রয়েছে। দেখতে একটা মস্ত ফটোফ্রেমের মত হলেও তা কিন্তু আসলে এটা একটি বাড়ি। দুবাইয়ের এই বাড়িটির নামকরণ করা হয়েছে, ‌‘দুবাই ফ্রেম’।
সংযুক্ত আরব আমিরাত হলো একটি আধুনিক তেল রপ্তানিকারক রাষ্ট্র, যার অর্থনীতি খুবই বৈচিত্র্যপূর্ণ। দুবাই হলো পর্যটন, খুচরা বিক্রয় এবং আর্থিক যোগানের একটি বিশ্বকেন্দ্র। দুবাইয়ের জাবিল পার্ক এলাকায় রয়েছে এই বিশাল ফটো ফ্রেমটি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিল্ডিংয়ের অবজারভেশন ডেক-এ যেতে গেলে টিকিট কাটতে হয়। টিকেট মূল্য ১২ বছরের উপর হলে গুণতে হবে ৫২ দিরহাম আর শিশুদের বেলায় তা ২০ দিরহাম। সাধারণের জন্য সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকে এটি। লিফটে করে ফ্রেমের শীর্ষে উঠে শহরটির ঐতিহ্যবাহী অতীত নিদর্শন ও বর্তমানের চাকচিক্যময় দৃশ্য উপভোগ করা যায়। ৫০ তলা বাড়িটির গ্লাস টাওয়ারটি প্রায় ৫০০ ফুট লম্বা দুটি ফ্রেম দিয়ে তৈরি। এটি বিশ্বের বৃহত্তম ফ্রেমও। একটি কাঁচের সেতুর মাধ্যমে দুটি টাওয়ার সংযুক্ত করা হয়েছে।
টাওয়ার থেকে পুরনো ও নতুন দুবাই শহরের ৩৬০ ডিগ্রি ভিউ দেখা যায়। টাওয়ারটি থেকে দক্ষিণে তাকালেই দেখা যাবে দুবাইয়ের সবচেয়ে আধুনিক সব ভবন। এর মধ্যে রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন ও বুর্জ খলিফার মতো স্থাপনা। এর বিপরীত দিকে তাকালে ঠিক যেন বিপরীত দৃশ্য দেখা যাবে। সেখানে রয়েছে দুবাইয়ের পুরাতন শহর আল- কারামা, দেরা দুবাই, বার-দুবাই এবং এমিরেটস টাওয়ারও।
দুবাই প্রবাসী জানি আলম বলেন, এর উপর থেকে দুবাইয়ের একদিক থেকে পুরাতন শহর অন্য দিক থেকে নতুন শহর দেখতে দারুণ লাগে। কাচের তলবিশিষ্ট গ্লাসে হাঁটতে যেমন ভয় তেমনি নিচে দিকে দেখতেও ভালো লাগে। সত্যি অসাধারণ একটি ফ্রেম!

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

বিশ্বের বিখ্যাত ৫ পাঠাগার

বই জ্ঞানের পরিধি বাড়ায়। আর বইয়ের উৎস পাঠাগার। একটি জাতির পাঠাগার যত বেশি সমৃদ্ধ;...

গিনেস বুকে একসঙ্গে ৯ সন্তান জন্ম দেওয়া হালিমা

বার্তাকক্ষ একই সঙ্গে ৯টি সন্তানের জন্ম দিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন এক মা। গিনেস বুক অফ...

১০০ বছর পর এসে পৌঁছাল চিঠি!

বার্তাকক্ষ ১৯১৬ সালে পাঠানো ওই চিঠিটি সম্প্রতি দক্ষিণ লন্ডনের হ্যালেট রোডের ঠিকানায় আসার পর এ...