Tuesday, September 26, 2023
Homeজাতীয়রাজধানীতে বেড়েছে ছিনতাই, চলাচলে সতর্ক থাকার পরামর্শ

রাজধানীতে বেড়েছে ছিনতাই, চলাচলে সতর্ক থাকার পরামর্শ

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সংখ্যালঘু কমিশন এবার বাস্তবায়ন হোক

বিভিন্ন সময় দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন, অবৈধভাবে ভূমি দখল ও সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনার...

এমারেল্ড অয়েলের সঙ্গে যমুনা এডিবল অয়েলের চুক্তি

প্রতিদিনের ডেস্ক পুঁজিবাজারে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানি এমারেল্ড অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ...

শিল্পীর নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় পূর্ণতা পাচ্ছে দূর্গাপূজার প্রতিমা

নিজস্ব প্রতিবেদক আর কয়েক দিন পর শুরু হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।...

‘কোনো কিছু না পাওয়ার চেয়ে কিছু পাওয়া ভালো’

প্রতিদিনের ডেস্ক ২০১০ সালে এশিয়ান গেমসে রৌপ্য পদক জিতেছিল বাংলাদেশ। এরপর ২০১৪ সালে আরও একবার...

বার্তাকক্ষ ,,রাজধানীতে রাত-বিরাতে চলাচলে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন জায়গায় কেউ না কেউ ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছেন, খোয়াচ্ছেন সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন, স্বর্ণালঙ্কার কিংবা টাকা-পয়সা। বাধা দিলেই ছিনতাইকারীর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে অনেকে হচ্ছেন আহত, ঘটছে মৃত্যুর ঘটনাও। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে নগরবাসীকে রাত-বিরাতে চলাচলে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। তবে রাতে চলাচল নির্বিঘ্ন করতে এবং ছিনতাইয়ের মতো ঘটনার ঠেকাতে কাজ চলছে বলেও জানিয়েছেন তারা।
ছিনতাইয়ের শিকারদের মধ্যে বড় একটি অংশই দেশের নানা স্থান থেকে বিভিন্ন যানবাহনে আসা যাত্রী। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ছেড়ে আসা যানবাহনগুলো ভোরের দিকে রাজধানীতে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়। বাসস্ট্যান্ড থেকে তারা নির্দিষ্ট গন্তব্য বাসা-বাড়িতে যাওয়ার পথে বিভিন্ন সময় অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সম্মুখীন হন। এছাড়া রাত এবং ভোরে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় চলাচলের সময় অনেকেই ছিনতাইয়ের শিকার হন। অনেক সময় এসব ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িতরা গ্রেফতার হলেও অনেক ক্ষেত্রেই থেকে যায় ধরাছোঁয়ার বাইরে।
গত ৩ ফেব্রুয়ারি রাত ১টার দিকে কাজ শেষে উত্তর বাড্ডার বাসায় ফিরছিলেন গুলশানের ফাইভ স্টার নামে একটি রেস্টুরেন্টের কর্মচারী সুমন্দ্র পাল (২৭)। উত্তর বাড্ডায় যাওয়ার পথে লাজ ফার্মার সামনে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন তিনি। এসময় ছিনতাইকারীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় তার। এক পর্যায়ে ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) ওই যুবকের মৃত্যু হয়।চলতি মাসেরই ১৮ তারিখে ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর বংশালে ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন ব্যবসায়ী সবুজ হাসান (২৮)। তিনি ব্যবসায়িক কাজে সিলেট থেকে ফিরছিলেন। সায়েদাবাদ থেকে বংশাল যাওয়ার পথে ঠাটারী বাজার এলাকায় একটি মোটরসাইকেলে দুই ছিনতাইকারী তার গতি রোধ করে। এক পর্যায়ে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আহত করে তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন নিয়ে যায়।এর গত ২২ জানুয়ারি ভোরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ছিনতাইকারী ছুরিকাঘাতে নিহত হন গার্মেন্টস কর্মী খলু মিয়া। ছিনতাইয়ে বাধা দিলে ছিনতাইকারীরা তার বুকে উপর্যুপুরি ছুরিকাঘাত করে মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে বিভিন্ন তথ্য পর্যালোচনা করে ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করা হয়।
আবার রাজধানীতে ২০২১ সালের ৫ মে নিজের সঙ্গে থাকা ভ্যানিটি ব্যাগটি ছিনতাইকারীদের ‘ছো মারা’ থেকে রক্ষা করতে গিয়ে রিকশা থেকে পড়ে গিয়ে মারা যান সবুজবাগ বৌদ্ধ মন্দিরের পরিছন্নতা কর্মী সুনিতা রানী দাস (৫০)। ঘটনার দেড় বছরের বেশি সময় অতিক্রম হলেও এখনও সেই ছিনতাইকারীদের গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এমনকি এখনও ছিনতাইকারীরা যে প্রাইভেটকার থেকে ব্যাগটি টান দিয়েছিল সেটিও শনাক্ত করতে পারেনি তদন্তকারী দল।
তবে ২০২২ সালের ২৭ মার্চ ভোরে রাজধানীর মিরপুরের শেওড়াপাড়ায় দন্ত চিকিৎসক বুলবুল আহমেদ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বেশ কয়েকজন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছিল গোয়েন্দা পুলিশ। পরবর্তী সময়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যেই সেই চিকিৎসককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে ছিনতাকারীরা। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সবাইকে গ্রেফতার করা হয়। সে সময় বলা হয়েছিল যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছিল তারা কিছুদিন আগেই ছিনতায়ের মামলায় জেল খেটে বেরিয়েছে। জেল থেকে বেরিয়ে আবারও একই ধরনের কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয়।
আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি বিভিন্ন গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহে রাজধানীর ৫০টি থানার পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি গোয়েন্দা পুলিশসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা নিয়োজিত রয়েছেন। রাজধানীতে রাতের বেলায় বিশেষ করে ভোরের দিকে ছিনতাইয়ের ঘটনায় বেশ উদ্বিগ্ন খোদ ডিএমপির পুলিশ কর্মকর্তারাই।
তারা বলছেন, মাঝ রাতে কিংবা ভোরের দিকের ঘটনাগুলো কমানোর জন্য কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া যায়, সেসব বিষয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। সেই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট থানাগুলোকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে রাজধানীর গাবতলী, মহাখালী, সায়েদাবাদ, যাত্রাবাড়ী, উত্তরা ও রাজধানীতে ঢোকার মুখগুলোতে নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
গোয়েন্দারা বলছেন, রাজধানীতে রাতের বেলা ছিনতাইকারীদের সঙ্গে এখন সহায়ক হিসেবে কাজ করছে বেশ কিছু অসাধু সিএনজি চালক। যা যেকোনও অপরাধকে আরও উসকে দিচ্ছে। রাতের বেলায় যাত্রীদের নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার সময় কিছুটা নীরব জায়গায় নিয়ে গিয়ে লোকজনদের কাছ থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তাদের সঙ্গে থাকা মূল্যবান জিনিসপত্র টাকা-পয়সা। এছাড়া বিভিন্ন প্রাইভেটকারে করে ঘুরে রাতের বেলায় বিভিন্ন সড়কে যাত্রীদের ধারালো

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

লালবাগে মিষ্টির দোকানে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৯ ইউনিট

প্রতিদিনের ডেস্ক রাজধানীর লালবাগে মদিনা মিষ্টান্ন ভান্ডার নামে একটি মিষ্টির দোকানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে...

‘এলপিজির দাম বেশি নিলে ডিলারদের লাইসেন্স বাতিল’

প্রতিদিনের ডেস্ক সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে তরলীকৃত পেট্রেলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম বেশি নিলে প্রয়োজনে ডিলারদের...

বিশ্বের মানুষ পশ্চিমাদের প্রতারণার শিকার

প্রতিদিনের ডেস্ক বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ পশ্চিমাদের প্রতারণার শিকার বলে মন্তব্য করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।...