Friday, October 7, 2022
হোম আজকের পত্রিকাঝিনাইদহে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা মামলার আসামীরা অধরা

ঝিনাইদহে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা মামলার আসামীরা অধরা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

শেষ বিশ্বকাপের আগে নার্ভাস মেসি

বার্তাকক্ষ বিদায়ের রাগিনী শুনিয়ে দিলেন লিওনেল মেসি। কাতারেই শেষ বিশ্বকাপ খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।...

মন ভেঙে গেলে শরীরে যা ঘটে

বার্তাকক্ষ হৃদয় তারাই ভাঙে, যারা হৃদয়ের সবচেয়ে কাছে থাকে। কারণ দূর থেকে কোনোকিছু ভাঙা সহজ...

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বার্তাকক্ষ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা...

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করবে যে ৫ পানীয়

বার্তাকক্ষ কোষ্ঠকাঠিন্যে আক্রান্ত ব্যক্তিই এর কষ্ট সম্পর্কে জানেন। প্রথমে গুরুত্ব না দিলে এটি পরবর্তীতে মারাত্মক...

ঝিনাইদাহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদাহ সদরের হরিশংকরপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়ায় পরকীয়ার অভিযোগ তুলে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার ২১দিন পার হলেও অভিযুক্তদের কেউ গ্রেফতার হয়নি। গত ২৭ মে রাত গভীর রাতে শিখা খাতুন (২৮) নামে ওই গৃহবধূকে মারপিট করা হয়। এরপর গত ৩০ মে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। মেয়েকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ তুলে শিখার বাবা চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার মর্তুজাপুরের মহর আলী ঝিনাইদাহ সদর থানায় একটি মামলা করেছেন।
মামলার আসামিরা পাইকপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে হৃদয়, তোরাপ আলীর ছেলে সজীব, ঝন্টুর স্ত্রী মধু খাতুন, জহর শেখের ছেলে রাসেল, মসলেম মিয়ার ছেলে সাদ্দাম,কছিম সর্দারের ছেলে লিখন, মৃত সুলতান বিশ^াসের ছেলে রানা, মৃত ইজ্জত আলীর ছেলে কামরুল , সাধু হাটি গ্রামের ইউসুফ মোল্লার স্ত্রী তারজিনা খাতুন এবং হাটগোপালপুর এলাকার রাজমিস্ত্রি সুজন।
জানা গেছে, শিখার স্বামী ওমান প্রবাসী সাইফুল (৩৫) স্ত্রীকে নিজের কাছে নেয়ার জন্য এরই মধ্যে সকল প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। কিন্তু তার আগেই হত্যাকান্ডের শিকার হয় শিখা। শিভার একমাত্র ছেলে সিয়াম (১১) একটি আবাসিক মাদ্রাসায় লেখা পড়া করে। মায়ের হত্যাকন্ডের পর সে বর্তমানে আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে নানা বাড়িতে অবস্থান করছে।
শিখার বাবা চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার মর্তুজাপুরের মহর আলী তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ তুলে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি মামলা করেছেন।
মামলায় বলা হয়েছে, সাইফুল ইসলামের সাথে পারিবারিক ভাবে শিখার বিয়ে হয়। তিন বছর পরে তাদের একটি পুত্র সন্তান হয়। যার নাম সিয়াম। বিয়ের পর সুখে-শান্তিতে দিন কাটছিলো তাদের। স্বচ্ছলতার আশায় সাইফুল স্ত্রী-সন্তান রেখে ওমানে যায়। সেখানে গত ১০ বছর থাকার পর স্ত্রীকে নিজের কাছে নিয়ে যাওয়ার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে। কিন্তু শ^শুর-শাশুড়িসহ অন্যরা বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তারা পরিকল্পনা আটতে থাকে কিভাবে শিখার বিদেশ যাওয়া আটকানো যায়। তারই অংশ হিসেবে গত ২৭ মে রাত ১ টার দিকে একদল সন্ত্রাসী শিখার বসতঘরে হামলা চালায় ও বেপরোয়াভাবে মারধরের পর তার বিরুদ্ধে পরোকীয়ার অভিযোগ তোলে তারা। বলা হয়, হাট গোপালপুরের রাজমিস্ত্রি সুজনের সাথে তার অনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। এক পর্যায়ে তারা শিখার কাছে ৫০ হাজার টাকার চাঁদা দাবি করে। কিন্তু শিখা তাদেরকে টাকা দিতে অস্বীকার করায় আবারো মারধর করে ফেলে রেখে যায়। শিখা এ অপমানের জ্বালা সহ্য করতে না পেরে নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরে আশপাশের লোকজন তাকে মূমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে প্রথমে তাকে ফরিদপুর মেডিকেলে এবং সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে তাকে রিলায়েন্স জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে গত ৩০ মে রাতে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। মামলার বিষয়ে সার্কেল এসপি আবুল বাশার জানান, মামলাটির তদন্ত করা হচ্ছে। প্রকৃত দোষীদের ছাড় দেয়া হবে না।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আহছানুর রহমান জানান, আমরা আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে তারা সকলেই গা ঢাকা দিয়ে আছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...