Friday, September 30, 2022
হোম আজকের পত্রিকাপ্রেমিকাকে খুশি করতে ৭ কোটি টাকা ‘চুরি’

প্রেমিকাকে খুশি করতে ৭ কোটি টাকা ‘চুরি’

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

চাকরির নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করায় ৩ জন গ্রেফতার

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা পাটকেলঘাটায় কোয়েষ্ঠ ফার্মা নামে একটি কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া কাগজপত্র...

মাত্র দু বছরে মৃত্যুর মুখে নদী : খরস্রোতা শোলমারি এখন ৩-৪ মিটারের সরু নালা

খুলনা সংবাদদাতা খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুক চিরে বয়ে গেছে শোলমারি নদী। এর স্রোত ও গভীরতা...

জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য দুর্নীতি দূর করতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার

খুলনা সংবাদদাতা ‘তথ্য প্রযুক্তির যুগে জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত হোক’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৯...

তালায় দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা

শিরিনা সুলতানা, তালা : সাতক্ষীরার তালায় সামাজিক সম্প্রীতি ও দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভা...

বার্তাকক্ষ
কথায় বলে, ভালোবাসা অন্ধ। কিন্তু অন্ধপ্রেম যে কত বড় বিপদ ডেকে আনতে পারে, তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন ভারতের এক ব্যাংক ম্যানেজার। প্রেমিকার জন্য বিরাট অংকের আর্থিক অনিয়মের অভিযোগে জেলে রয়েছেন তিনি। পুলিশের বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম হরি শংকর। বেঙ্গালুরুর হনুমন্তনগরের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকের ম্যানেজার তিনি। সম্প্রতি ডেটিং অ্যাপে এক তরুণীর সঙ্গে আলাপ হয়েছিল শংকরের। ধীরে ধীরে তাদের সম্পর্ক গভীর হয়। আর তারপরই ব্যাংক থেকে মোটা টাকা হাতিয়ে প্রেমিকার সামনে ‘হিরো’ হওয়ার চেষ্টা করেন সেই ব্যক্তি। ওই ব্যাংকের জোনাল ম্যানেজারের অভিযোগ, আর্থিক অনিয়মের মাধ্যমে ৫ কোটি ৭০ লাখ রুপি (৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা প্রায়) তুলে নিয়েছেন ব্যাংক ম্যানেজার শংকর। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৩ থেকে ১৯ মে’র মধ্যে। এতে শংকর একা নয়, সাহায্য করেছেন ব্যাংকের দুই সহকর্মী কৌশল্যা এবং মুনিরাজুও। ব্যাংক থেকে অর্থ লোপাটের অভিযোগে এরই মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে শংকরকে। আপাতত ১০ দিনের জন্য পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন অভিযুক্ত। জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তার দুই সহকর্মীকেও। পুলিশ জানিয়েছে, এক নারী গ্রাহক ওই ব্যাংকে ১ কোটি ৩০ লাখ রুপি ফিক্সড ডিপোজিট করেছিলেন, যা দেখিয়ে ৭৫ লাখ রুপি লোন নেন। এর জন্য প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র ব্যাংকে জমা দিয়েছিলেন তিনি। অভিযোগ, সেই কাগজপত্র এবং ফিক্সড ডিপোজিটকে কাজে লাগিয়েই প্রতারণার ছক কষেন শংকর। গ্রাহকের ওই অর্থকে সিকিউরিটি হিসেবে রেখে ৫ কোটি ৭০ লাখ রুপি তুলে নেওয়া হয় ওই ব্যাংক থেকে। এই অর্থ কয়েক ভাগে ভাগ করে পশ্চিমবঙ্গ-কর্ণাটকের বিভিন্ন শহরের মোট ২৮টি আলাদা আলাদা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রেখে দেওয়া হয়। পুলিশ জানতে পেরেছে, এই বিপুল অর্থ সরাতে মোট ১৩৬ বার ব্যাংক লেনদেন করা হয়েছিল। আর সেই কাজে শংকরকে সাহায্য করেন ওই দুই সহকর্মী। তবে তাদের জোর করে এ কাজ করানো হয়েছে কি না, তা জানতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন শংকর। তার দাবি, ডেটিং অ্যাপে তরুণীর সঙ্গে আলাপের লোভ দেখিয়ে তার থেকে এই বিরাট অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে সাইবার অপরাধীরা। অভিযুক্তের এই বয়ানও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।
সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

চাকরির নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করায় ৩ জন গ্রেফতার

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা পাটকেলঘাটায় কোয়েষ্ঠ ফার্মা নামে একটি কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া কাগজপত্র...

মাত্র দু বছরে মৃত্যুর মুখে নদী : খরস্রোতা শোলমারি এখন ৩-৪ মিটারের সরু নালা

খুলনা সংবাদদাতা খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুক চিরে বয়ে গেছে শোলমারি নদী। এর স্রোত ও গভীরতা...

তালায় দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা

শিরিনা সুলতানা, তালা : সাতক্ষীরার তালায় সামাজিক সম্প্রীতি ও দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভা...