Friday, October 7, 2022
হোম আজকের পত্রিকাস্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উৎসবে মাতোয়ারা যশোরবাসী

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উৎসবে মাতোয়ারা যশোরবাসী

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত আহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে যশোর নড়াইল সড়কের হামকুরা ব্রিজের কাছে বেপরোয়া...

পাকিস্তানের কাছে টাইগারদের পরাজয়

বার্তাকক্ষ শুরুটা দারুণ হলেও শেষটাতে পারছে না টাইগাররা। পাকিস্তানের দেয়া ১৬৮ রানের লক্ষ্যকে তাড়া করতে...

আজ সব ভুল ক্ষমা করে সুখ উদযাপনের দিন

বার্তাকক্ষ ক্ষমা করা একটি মহৎ গুণ। কাউকে ক্ষমা করার মাঝেও কিন্তু সুখ থাকে। ৭ অক্টোবর...

হাসলেই কমবে ব্যথা, বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

বার্তাকক্ষ হাসলে মন ভালো থাকে, এ কথা সবারই জানা। তবে জানলে অবাক হবেন, হাসলে শুধু...

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উৎসবে মাতোয়ারা যশোরবাসী। শনিবার বেলনু ও কবুতর উড়ানো, বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিনটি উদযাপন করা হয়েছে। সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা পৃথক পৃথক কর্মসূচিতে শামিল হয়।
শনিবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের ব্যানার নিয়ে অনুষ্ঠানস্থল টাউন হল ময়দানে জড়ো হতে থাকেন। সেখানে পদ্মা সেতু ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠান দেখার ব্যবস্থা করে জেলা প্রশাসন। সাড়ে ৯টায় প্রশাসন কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। পরে সুসজ্জিত রওশন আলী মঞ্চে পদ্মা সেতুর অনুষ্ঠানের সরসরি সম্প্রচার প্রদর্শন করা হয়।
জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে টাউন হল ময়দানে বড় পর্দায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখার আয়োজন করায় নানা বয়সের নারী-পুরুষরা অংশ নেন। দীর্ঘ সময় ধৈর্য ধরে তারা উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানে আগতরা জানিয়েছেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী আয়োজনে যোগ দিতে পেরে তারা গর্বিত ও আবেগাপ্লুত। সেইসাথে এ সেতু যশোর অঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটাবে বলে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান অনুষ্ঠানে আগতরা।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, যশোর জেলা পরিষদের প্রশাসক সাইফুজ্জামান পিকুল, যশোর পৌরসভার মেয়র মুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণি খান পলাশ, মুক্তিযোদ্ধা চলাকালীন বৃহত্তর যশোরের মুজিব বাহিনীর প্রধান মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেন মনি, উপ-প্রধান অ্যাডভোকেট রবিউল আলম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মুযাহারুল ইসলাম মন্টু, প্রেস ক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুনসহ সরকারি বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।
দুপুরে যশোর শহরের গাড়িখানাস্থ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় প্রাঙ্গন থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলনের নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে চৌরাস্তায় গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় অংশ নেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলী রায়হান, মেহেদী হাসান মিন্টু, হুমায়ন কবির কবু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু সেলিম রানা, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ফারুক আহমেদ কচি, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুখেন মজুমদার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুন্সী মহিউদ্দিনসহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ। বিকেলে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে জেলা পুলিশের উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা, সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অপরদিকে, ঐতিহাসিক এই অনুষ্ঠানটি দেখে ইতিহাসের সাক্ষী হয়েছেন যশোরের তিন লক্ষাধিক শিক্ষার্থী। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে থাকা টেলিভিশন ও মাল্টিমিডিয়ায় প্রায় দেড় শত মাইল দূরের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখে আনন্দে-আবেগে উদ্বেলিত হয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্টরা।
যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী তাসমিয়া জাহান ঐশি বলেন, স্কুলের মাঠে বড় পর্দায় দেখানো হচ্ছে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান। তাই স্যার ম্যাডামদের নিয়ে অনুষ্ঠান দেখছি। ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী রুবাইয়া হক বলেন, পদ্মাসেতু আমাদের অহংকার। দেশের টাকায় সবচেয়ে বড় একটি সেতু করতে পেরেছি আমরা। সেই সেতু উদ্বোধন হচ্ছে আজ। ঐতিহাসিক দিনে ঐতিহাসিক ক্ষণের সাক্ষী হতে পেরে ভালো লাগছে।
যশোর কালেক্টরেট স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র নাজমুস সাকিব বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়ায় পদ্মাসেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান দেখেছি। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী-এমপিদের দেখলাম। পদ্মাসেতু নিয়ে ডকুমেন্টটারিও দেখলাম। কিন্তু উদ্বোধন অনুষ্ঠান সরাসরি দেখতে পারলে ভালো লাগতো। মাল্টিমিডিয়ায় বা ইউটিউবে পদ্মা সেতু দেখে চোখের ক্ষুধা বা মনের ক্ষুধা মেটেনি। বরং আরো ক্ষুধা বাড়িয়ে দিয়েছে। আম্মু বলেছে সামনের মাসে স্বপরিবারে পদ্মাসেতুসহ পদ্মার পাড় ঘুরতে যাবে।
যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গুলসানা আরা বেগম বলেন, পদ্মাসেতু বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্নের ডানা মিলেছে। যার উদ্বোধন করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমরা সেই ঐতিহাসিক সময়ের সাক্ষী হয়ে থাকলাম। পদ্মাসেতু শুধু এই অঞ্চলের মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা উন্নত করলো না। একই সাথে মানুষের ভাগ্যও পরিবর্তন হবে। অনেক সময় চাকুরি পরীক্ষার জন্য এই অঞ্চলের শিক্ষার্থী-যুবকদের নানা বিড়ম্বনার পড়তে হয়। এখন দ্রুত ৪-৫ ঘন্টায় ঢাকা থেকে পরীক্ষা দিয়ে যশোরে ফিরতে পারবে।
যশোর জেলা শিক্ষা অফিসার একেএম গোলাম আজম বলেন, যশোরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের আনন্দঘন পরিবেশে পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান উদযাপন করেছে। জেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, ভোকেশনাল ও কারিগরি স্কুল মিলে মোট এক হাজারের মতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে তিন লাখ ১০ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত। যাদের বয়স ১২ থেকে ১৮ বছর। প্রত্যেকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে টেলিভিশন কিংবা মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান প্রদর্শন করা হয়েছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...