Thursday, October 6, 2022
হোম আজকের পত্রিকাকেশবপুরের নরসুন্দর চঞ্চল হত্যার রহস্য উদঘাটন : বোনকে উত্যক্ত করায় খুন

কেশবপুরের নরসুন্দর চঞ্চল হত্যার রহস্য উদঘাটন : বোনকে উত্যক্ত করায় খুন

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে

কিছু উন্নয়ন প্রকল্প ধীর গতির কারণে জনভোগান্তি চরমে উঠেছে। এছাড়া অপরিকল্পিত খোঁড়াখুঁড়ি তো চলছে।...

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...

উৎপল দে,কেশবপুর
যশোরের কেশবপুরে নরসুন্দর চঞ্চল দাস (২২) হত্যার ৩৬ ঘন্টার মধ্যে রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। মূলহোতা সহ ৩ আসামি আটক ও হত্যায় ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার হয়েছে। আটককৃতরা মজিদপুর গ্রামের নিরাপদ দাসের ছেলে আনন্দ দাস (৪৫) তার ছেলে সুদেব দাস (২১) ও পিন্টু দাসের ছেলে সুমন দাস (১৮)। শনিবার এ মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তি জবানবন্দি দিয়েছে সুদেব ও সুমন। তারা স্বীকার করেছে নিষেধ করা সত্ত্বেও সুদেবের বোনকে উত্যক্ত করায় চঞ্চলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরমান হোসেন আসামিদের এ জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন। শুক্রবার মজিদপুর থেকে ওই দুইজনসহ তিনজনকে আটক করে পুলিশ। এ সময় আসামিদের কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহৃত চাকু ও নিহত চঞ্চলের মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয় ।
জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাতে কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর গ্রামে ঋষিপাড়ার কার্তিক দাসের ছেলে চঞ্চল দাস (২২) বাড়ির পাশে মাঠের মধ্যে রবিউল ইসলাম রবির কলা বাগান থেকে গলা ও পেট কাটা অবস্থায় ছুটে এসে কাকা বিকাশ দাসের বাড়িতে এসে গোঙরাতে থাকে। শব্দ শুনে বিকাশ দাস ও তার স্ত্রী ঘর থেকে বের হয়ে দেখে বারান্দার সিড়িতে গলা ও পেট কাটা অবস্থায় পড়ে আছে চঞ্চল দাস। ওইসময় তাদের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে চঞ্চলকে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। খুলনায় হাসপাতালে নেয়ার পথে চুকনগর এলাকায় পৌঁছালে চঞ্চল দাস মারা যায়। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে সহকারী পুলিশ সুপার (মনিরামপুর সার্কেল) আশেক সুজা মামুন ও কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ বোরহান উদ্দীন ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। সেখানে পরিদর্শন শেষে হত্যায় জড়িত সন্দেহে একই গ্রামের সুদেব দাস (২১) ও তার বাবা আনন্দ দাসকে (৪৫) আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের দেয়া তথ্য মোতাবেক পুনরায় অভিযান চালিয়ে সুমন দাসকে (১৮) আটক করে। হত্যার ঘটনায় নিহতের বাবা কার্তিক দাস শুক্রবার কেশবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানায়, সুদেব দাসের নির্দেশে সুমন দাস ফোন করে চঞ্চল দাসকে বাড়ি থেকে ডেকে আনলে হত্যার পরিকল্পনা অনুযায়ী আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা সুদেব দাস চাকু দিয়ে চঞ্চল দাসকে গলায় ও পেটে আঘাত করে। পরে হত্যার কাজে ব্যবহৃত চাকু মাঠের মধ্যে পুতে রাখে। পরবর্তীতে আসামিদের তথ্য ও দেখানো মোতাবেক সেখান থেকেই হত্যার কাজে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করে পুলিশ।
নিহত চঞ্চল দাসের বাবা কার্তিক দাস বলেন, পাড়ার আনন্দ দাসদের সঙ্গে তাঁদের নারী নির্যাতনের একটি মামলা চলছিল। তাঁর ধারণা, মামলা নিয়ে বিরোধের কারণে তাঁর ছেলেকে খুন করেছে তারা।
এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ বোরহান উদ্দীন সাংবাদিকদের বলেন, চঞ্চল দাস হত্যার রহস্য উদঘাটন করে হত্যার মূলহোতা সুদেব দাস সহ ৩ আসামিকে আটক এবং হত্যার কাজে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়েছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...