Thursday, December 1, 2022
হোম জাতীয়‘টগি ফান ওয়ার্ল্ডে’ মেতেছে শিশু-কিশোর-তরুণরা

‘টগি ফান ওয়ার্ল্ডে’ মেতেছে শিশু-কিশোর-তরুণরা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

পুতিনের রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা দেখছে না ইউক্রেন

বার্তাকক্ষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের নেতারা একটি কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে ৯ মাস দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান...

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তানভীর সিকদার

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন তরুণ কবি তানভীর সিকদার। তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘সেফটিপিনে গেঁথে...

১১২ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিলো ইংল্যান্ড

বার্তাকক্ষ সব শঙ্কাকে পাশ কাঁটিয়ে নির্ধারিত সময়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামে ইংল্যান্ড। বৃহস্পতিবার (১...

আইজিপির নেতৃত্বে আইনের শাসনের ক্ষেত্র প্রস্তুতের আশা বিএনপি মহাসচিবের

বার্তাকক্ষ ‘রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দায়ের বন্ধ করা এবং দায়েরকৃত সব...

বার্তাকক্ষ
ঈদের তৃতীয় দিন রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি থিমপার্ক ‘টগি ফান ওয়ার্ল্ডে’ শিশু-কিশোর-তরুণদের ভিড় জমে। প্রায় প্রতিটি ফ্লোরেই উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। থিমপার্কের বিভিন্ন রাউড ও গেমস খেলায় হিমশিম খেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষের লোকজন। মঙ্গলবার (১২ জুলাই) সরেজমিনে শিশু-কিশোরদের মনের আনন্দে এমন সময় কাটাতে দেখা যায় থিমপার্কটিতে।
সরেজমিনে দেখা যায়, এক রাইড থেকে অন্য রাইডে ছুটছে আরিয়ান কবীর ও সাহেল হোসেনসহ পাঁচ শিশু। হরেক রকম খেলার সুযোগ পেয়ে রীতিমতো একটার পর একটা রাইডে চড়তে থাকে এই পাঁচজনসহ আরও ছয় শিশু। প্রায় তিন ঘণ্টা বিভিন্ন গেমস খেলে ও রাইডে চড়েও যেন তাদের ক্লান্তি নেই। বসুন্ধরা গ্রুপ শিশু-কিশোরদের সুস্থ বিনোদনের জন্য গড়ে তুলেছে বিশাল এই থিমপার্ক। বড়দের বিগ প্যাকেজ ও ছোটদের কিডজ প্যাকেজ রয়েছে এখানে। শিশুদের আলাদা শতাধিক রাইড আছে এবং বড়দের জন্য আরও বেশি রাইড রয়েছে বলেন জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত টগি ফান ওয়ার্ল্ড খোলা থাকে। এসব গেমস ও রাইডে দুপুর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মেতে থাকে শিশু-তরুণরা। চালু হওয়ার পর থেকেই ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে টগি ফান ওয়ার্ল্ড।
সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদুল আজহার দিন প্রচুর চাপ ছিল, পরের দিনও ব্যাপক লোক সমাগম হয়। আজকের বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা বলেন, ‘আপনাদের চোখের সামনেই তো দেখছেন হিমশিম খেতে হচ্ছে মানুষের ঢল থামাতে।’ অসাধারণ সব গেমস ও রাইডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জাগো নিউজকে বলেন, ‘টগি ফান ওয়ার্ল্ড’ তরুণ-তরুণী ও শিশু-কিশোরদের জন্য অসাধারণ সময় কাটানোর একটা মাধ্যম। খেলাধুলার সংকীর্ণ সুযোগের রাজধানী ঢাকায় টগি ফান ওয়ার্ল্ড যথেষ্ট সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। বিদেশের গেম জোনগুলোতে যে ধরনের একটা অনুভূতি কাজ করে, তাদের যে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে সেটা পাওয়া যাচ্ছে এখানে। দায়িত্বরতরা বলেন, একদিকে বিনোদন অন্যদিকে যুবসমাজের মাদকাসক্তিসহ নেতিবাচক চিন্তা থেকে ফেরাতে পারে টগি ফান ওয়ার্ল্ডের এমন আয়োজন। এখানে এলে বিনোদনে ডুবে থাকার মাধ্যমে অপরাধমূলক চিন্তা থেকে দূরে থাকবে তারা। দেখা গেছে, টগি ফান ওয়ার্ল্ড সেজেছে নতুন সাজে। আধুনিকায়নের পাশাপাশি যুক্ত হয়েছে নতুন নতুন রোমাঞ্চকর সব গেমস এবং রাইড, যার সংখ্যা দেড় শতাধিক। সন্তানের সঙ্গী বাবা-মায়েদের বিনোদনের উপযোগী আয়োজনও আছে টগি ফান ওয়ার্ল্ডে, যেন পুরো পরিবার একসঙ্গে মেতে উঠতে পারে জীবনের আনন্দে। এসব গেমস ও রাইডের সিংহভাগই ইউরোপ ও চীন থেকে আমদানি করা। প্রতিটি রাইডের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আন্তর্জাতিক মানের।
জানা গেছে, চলতি বছরের ৪ মার্চ সন্ধ্যায় বসুন্ধরা সিটি শপিংমলের লেভেল ওয়ানে একটি চমকপ্রদ ফ্ল্যাশমবের মাধ্যমে করোনা-পরবর্তী সময়ে টগি ফান ওয়ার্ল্ডের নতুন করে উদ্বোধন করা হয়। বসুন্ধরা সিটির লেভেল ৮ থেকে ১৮ পর্যন্ত বিস্তৃত টগি ফান ওয়ার্ল্ডে লেজার ট্যাগ, পেইন্ট বল, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি ও অগমেন্টেড রিয়েলিটি গেমের মতো রোমাঞ্চকর সব আয়োজন রয়েছে সব বয়সীদের জন্য। রোলার কোস্টার এবং আরও অনেক রুদ্ধশ্বাস সব রাইড তো রয়েছেই। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুরো আয়োজনের মূল লক্ষ্য সব মানুষ যেন রোমাঞ্চ জয়ের আনন্দ মনে নিয়ে বেড়ে ওঠে। বড়দের একটি প্যাকেজ একত্রে তিন হাজার ১০০ টাকা আর শিশুদের জন্য ৬০০ টাকা।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের পদ সংখ্যা বাড়ছে

বার্তাকক্ষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও...

বিশেষ ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণের ক্ষমতা পেলো সরকার

বার্তাকক্ষ বিশেষ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) নয়, ভোক্তাপর্যায়ে জ্বালানি তেল, বিদ্যুৎ ও...

ডিসেম্বরে শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা, সাগরে হতে পারে দুটি লঘুচাপ

বার্তাকক্ষ তাপমাত্রা ক্রমেই কমে ডিসেম্বর মাসের শেষার্ধে দেশে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে...