Friday, December 2, 2022
হোম শীর্ষ শহর গ্রামভালোবেসে বিয়ে, স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে ফেলে পালালেন স্বামী

ভালোবেসে বিয়ে, স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে ফেলে পালালেন স্বামী

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

অবসান হোক সহিংসতার রাজনীতির

১০ ডিসেম্বর সামনে রেখে মুখোমুখি আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। এদিন বিএনপি পল্টনে সমাবেশের ডাক...

রেমিট্যান্স অর্জনে সপ্তম বাংলাদেশ: বিশ্ব ব্যাংক

বার্তাকক্ষ: গত বছর প্রবাসী আয় থেকে বাংলাদেশ রেমিট্যান্স অর্জন করেছিল ২২ বিলিয়ন ডলার। চলতি বছর...

পুতিনের রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা দেখছে না ইউক্রেন

বার্তাকক্ষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের নেতারা একটি কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে ৯ মাস দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান...

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তানভীর সিকদার

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন তরুণ কবি তানভীর সিকদার। তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘সেফটিপিনে গেঁথে...

বার্তাকক্ষ
গাজীপুরে স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে ফেলে স্বামী পালিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গৃহবধূর শ্বশুর রামনাথ রাজভরকে (৫৫) আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১১ জুলাই) রাতে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্ত্রীর মরদেহ রেখে পালিয়ে যায় স্বামী।
গৃহবধূ বর্ষারাণী রাজভর (১৮) গাজীপুর মহানগরের পশ্চিম বিলাশপুর এলাকার বাদল রাজভরের মেয়ে এবং গাজীপুর বিজ্ঞান কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তার স্বামী দীপ্ত রাজভর (২৪) গাজীপুর মহানগরের উত্তর বিলাশপুর এলাকার রামনাথ রাজভরের (৫৫) ছেলে।
ওই গৃহবধূর মা লক্ষী নারায়ণ রাজভর অভিযোগ বলেন, প্রেমের সম্পর্কের পর বর্ষারাণী ও দীপ্ত ২০২১ সালের মার্চে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন মেয়েকে আমাদের বাড়িতে তেমন আসতে দিতেন না। এসএসসি পাসের পর ২০২২ সালে বর্ষাকে গাজীপুর বিজ্ঞান কলেজের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি করানো হয়। বর্ষা আরও লেখাপড়া করুক তা শ্বশুরবাড়ির লোকজন পছন্দ করতো না। বিভিন্ন সময় স্বামী-শ্বাশুড়িসহ যৌতুকের জন্য বর্ষাকে চাপ দিতেন। সর্বশেষ দীপ্তর দাদিকে দিয়ে বর্ষার কাছে নগদ পাঁচ লাখ টাকা ও তিন ভরী স্বর্ণালঙ্কার দিতে বলানো হয়। এসব নিয়ে তাদের সংসারে বিভিন্ন সময় কলহ হতো। সোমবার রাত ৮টার দিকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। আমার মেয়ের শ্বশুর রামনাথ রাত সাড়ে ১০টার দিকে মোবাইলফোনে জানায় বর্ষা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। তাকে দেখার জন্য হাসপাতালে যেতে বলেন তিনি। রাত ১১টার দিকে হাসপাতালে গিয়ে মেয়ের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখি। এ সময় স্বামী দীপ্ত কাছে ছিল না।
জয়দেবপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন বলেন, বর্ষার কপালে ও গলার নিচে কালো দাগ রয়েছে। দীপ্তর বাবা রামনাথকে সোমবার রাতেই হাসপাতাল চত্বর থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। স্বামী-শাশুড়িসহ পরিবারের লোকজন ঘরে তালা লাগিয়ে পালিয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ছাড়া বলা যাবে না এটি হত্যা না আত্মহত্যা।
হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম বলেন, মৃত অবস্থায় সোমবার রাত ১১টার দিকে দীপ্ত হাসপাতালে বর্ষার মরদেহ রেখে গেছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

সাতক্ষীরায় স্বর্ণের ১৬ বারসহ পাচারকারী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারকালে ১৬টি স্বর্ণের বারসহ এক যুবককে আটক করেছে...

রাজগঞ্জে মোটরসাইকেলে ভাড়ায় যাত্রীবহন পথ খুঁজে নিয়েছে শতাধিক বেকার যুবক 

প্রতিনিধি রাজগঞ্জ: যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জে প্রায় শতাধিক বেকার যুবক মোটরসাইকেলে ভাড়ায় যাত্রী বহন করে...

সরকার খাদ্য নিরাপদ বলয় তৈরি করছে : এমপি রনজিৎ

শান্ত দেবনাথ, বাঘারপাড়া যশোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কণ্যা আমাদের প্রিয়...