Saturday, December 3, 2022
হোম অর্থনীতিআরও কমলো রিজার্ভ

আরও কমলো রিজার্ভ

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

মহেশপুরে কৃষকের এক বিঘা সিমগাছ কেটে সাবাড় করেছে দূর্বৃত্তরা

মহেশপুর সংবাদদাতা ঝিনাইদহের মহেশপুরে শহিদুল ইসলাম নামে এক কৃষকের ৩৩ শতাংশ (এক বিঘা) জমির সিমগাছ...

বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের আরও বেশি আইপিএলে সুযোগ পাওয়া উচিত: রোহিত

বার্তাকক্ষ: আইপিএলের মতো বড় আসরে সুযোগ পাওয়া বরাবরই কঠিন। বড় দলের অনেক বড় খেলোয়াড়েরও অনেক...

নেতৃত্ব পেয়ে রোমাঞ্চিত লিটন

বার্তাকক্ষ: নিয়মিত অধিনায়ক তামিম ইকবাল চোটের কারণে ছিটকে গেছেন। ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে কে হবেন...

কাতার বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে বাতিল ১৭ গোল

বার্তাকক্ষ: কাতারে ফুটবল বিশ্বমঞ্চে গ্রুপ পর্বের সবগুলো ম্যাচ শেষ হয়েছে। গ্রুপ পর্বে ৪৮ ম্যাচে বাতিল...

বার্তাকক্ষ
বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আরও কমেছে। গতকাল মঙ্গলবার (১২ জুলাই) যে রিজার্ভ ছিল ৩৯ দশমিক ৮০ বিলিয়ন ডলার, তা আজ বুধবার (১৩ জুলাই) কমে দাঁড়িয়েছে ৩৯ দশমিক ৭০ বিলিয়ন ডলারে।
বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
গত বছরের ডিসেম্বরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ ছিল ৪৬ দশমিক ১৫ বিলিয়ন ডলার। আগস্টে ছিল ৪৮ বিলিয়ন ডলার। এই রিজার্ভ কমতে কমতে এখন দুই বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো ৪০ বিলিয়ন ডলারের কমে এসে দাঁড়ালো।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত সপ্তাহে এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) সঙ্গে এক দশমিক ৯৯ বিলিয়ন ডলার মূল্যের আমদানি পেমেন্ট নিষ্পত্তি করেছে বাংলাদেশ। আমদানির অর্থ পরিশোধের অনুমোদন দেওয়ার পর কমে গেছে রিজার্ভ।
আকু হলো এমন একটি ব্যবস্থা যার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো আঞ্চলিক লেনদেনের জন্য আমদানি পেমেন্ট নিষ্পত্তি করে। বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, ইরান, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা এর সদস্য। এই ব্যবস্থায় দেশগুলোর কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোকে প্রতি দুই মাস অন্তর আমদানির অর্থ পরিশোধ করতে হয়।
রপ্তানি আয় বাড়লেও অস্বাভাবিকভাবে আমদানি ব্যয় বেড়ে যাওয়া, প্রবাসী আয় (রেমিট্যান্স) কমে যাওয়ার ফলে ডলারের ওপর চাপ তৈরি হওয়ায় রিজার্ভে প্রভাব পড়েছে বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা। কয়েক মাস ধরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডলারের মজুত চাপে আছে বলেও জানান তারা।
গত অর্থবছরের জুলাই থেকে মে মাসের মধ্যে আমদানি ব্যয় ৩৯ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭৫ দশমিক ৪০ বিলিয়ন ডলার। সেই তুলনায় রপ্তানি আয় ৩৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪৪ দশমিক ৫৮ বিলিয়ন ডলার। অন্যদিকে গত ছয় বছরের মধ্যে প্রথমবার রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে। গত অর্থবছরে প্রবাসীরা অনানুষ্ঠানিক চ্যানেলে অর্থ পাঠানোয় রেমিট্যান্স আসে ২১ দশমিক শূন্য ৩ বিলিয়ন ডলার।
জানা গেছে, গত বছরের শুরুতে মহামারি করোনার কারণে প্রবাসীরা এক ধরনের অনিশ্চয়তা থেকে তাদের জমানো টাকা দেশে পাঠিয়েছিলেন। অনেকে চাকরি হারিয়ে কিংবা ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ করে সব অর্থ দেশে এনেছেন। এছাড়া গত বছরের শুরুতে করোনার স্থবিরতার কারণে হুন্ডি প্রবণতা কমে যায়। ফলে ব্যাংকিং চ্যানেলে পাঠানো অর্থের অংক বেড়ে যায়।
এসব কারণে মহামারির মধ্যেও রেমিট্যান্সপ্রবাহ বেড়েছিল। এখন অনেকে দেশে এসে আটকা পড়েছেন। আবার অনেক প্রবাসী নতুন করে ব্যবসা শুরু করতে গিয়ে দেশে রেমিট্যান্স পাঠানো কমিয়ে দিয়েছেন। হুন্ডিও আবার বাড়ছে। তার ফলে প্রবাসী আয় নিম্নমুখী রয়েছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

বিশ্ববাজারে বেড়েছে সোনার দাম

বার্তাকক্ষ গেল সপ্তাহে বিশ্বাবাজারে সোনার দামে বড় উত্থান হয়েছে। এক সপ্তাহেই প্রতি আউন্স সোনার...

শাহজালাল বিমানবন্দর থার্ড টার্মিনাল নির্মাণে ফের বাড়ছে ব্যয়

বার্তাকক্ষ মেগা প্রকল্প ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের থার্ড টার্মিনাল (টার্মিনাল-৩)। সিঙ্গাপুরের চাঙ্গি বিমানবন্দরের...

৫ মাসে পোশাক থেকেই এসেছে ১৮৩৪ কোটি ডলার

বার্তাকক্ষ রফতানিতে আবারও রেকর্ড হলো, গত ৫ মাসে তৈরি পোশাক রফতানি থেকেই এসেছে এক...