Thursday, December 1, 2022
হোম আইটিটুইটারের ভুয়া অ্যাকাউন্ট কত ৫% নাকি ২০%

টুইটারের ভুয়া অ্যাকাউন্ট কত ৫% নাকি ২০%

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

পুতিনের রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা দেখছে না ইউক্রেন

বার্তাকক্ষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের নেতারা একটি কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে ৯ মাস দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান...

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তানভীর সিকদার

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন তরুণ কবি তানভীর সিকদার। তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘সেফটিপিনে গেঁথে...

১১২ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিলো ইংল্যান্ড

বার্তাকক্ষ সব শঙ্কাকে পাশ কাঁটিয়ে নির্ধারিত সময়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামে ইংল্যান্ড। বৃহস্পতিবার (১...

আইজিপির নেতৃত্বে আইনের শাসনের ক্ষেত্র প্রস্তুতের আশা বিএনপি মহাসচিবের

বার্তাকক্ষ ‘রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দায়ের বন্ধ করা এবং দায়েরকৃত সব...

বার্তাকক্ষ
স্প্যাম বট নিয়ে সঠিক তথ্য শেয়ার না করায় সম্প্রতি টুইটার অধিগ্রহণ পরিকল্পনা থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন ইলোন মাস্ক। আকস্মিকভাবে ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে টুইটার অধিগ্রহণ পরিকল্পনা থেকে সরে আসায় টেসলা প্রধানের বিরুদ্ধে মামলা করেছে টুইটার। চলতি বছরের এপ্রিলে টুইটার অধিগ্রহণ চুক্তিতে পৌঁছেছিলেন মাস্ক। কিন্তু শুরু থেকেই স্প্যাম বট ও ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষ।
ইলোন মাস্কের দাবি, মাইক্রোব্লগিং প্লাটফর্মটির ২০ শতাংশই স্প্যাম বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট, যা টুইটারের দাবির চার গুণ বেশি। প্রকৃত স্প্যাম অ্যাকাউন্টের সংখ্যা আরো বেশি হতে পারে বলেও মনে করেন মাস্ক। কিন্তু শুরু থেকেই টুইটারের দাবি ছিল, তাদের প্লাটফর্মে স্প্যাম বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট ৫ শতাংশ।
টুইটারে স্প্যাম, বট বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট হচ্ছে এমন অ্যাকাউন্ট যেখানে বাস্তবে অনুপস্থিত ব্যক্তির প্রতিনিধিত্ব করা হয়। কিছু স্প্যাম অ্যাকাউন্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি, আবার কিছু অ্যাকাউন্টের পেছনে কোনো ব্যক্তি জড়িত। এ কারণে স্প্যাম ও বট চিহ্নিত করার কাজটি বেশ জটিল। স্প্যাম বা বটের মাধ্যমে টুইট করা যায়, টুইট শেয়ার করা যায়, কাউকে ফলো দেয়া যায় বা ওই অ্যাকাউন্টকে অন্যরা ফলো দিতে পারে। টুইটারের দাবি, কিছু স্বয়ংক্রিয় বট অনেক ব্যবহারকারীর জন্য উপকারে আসতে পারে। উদাহরণস্বরূপ মি.স্টকবট বিভিন্ন স্টকের বাজারদর জানায়। এছাড়া আর্থকোয়াকবট বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে রিখটার স্কেলে ৫ কিংবা তার চেয়ে উচ্চমাত্রার ভূকম্পনের তথ্য শেয়ার করে। তবে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান ও বড় বড় করপোরেশনও তাদের স্বার্থ রক্ষায় স্প্যাম বট ব্যবহার করে। ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া স্প্যাম বট ব্যবহার করে মার্কিন ভোটারদের মধ্যে বিভাজন বাড়িয়ে দিয়েছিল বলে অভিযোগ তুলেছেন কিছু বিশেষজ্ঞ। স্প্যাম বটের আরেকটি ঝুঁকির দিক হচ্ছে, বিভিন্ন ভুয়া পুরস্কার ঘোষণা করে অনেক ব্যবহারকারীর কাছ থেকে ক্রিপ্টোকারেন্সি বা নগদ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে একটি গোষ্ঠী। মাঝে মাঝে সেলিব্রিটি বা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে হেয়প্রতিপন্ন করতে স্প্যাম বট ব্যবহূত হচ্ছে।
টুইটার অধিগ্রহণ আলোচনা শুরুর অনেক আগে থেকেই স্প্যাম বট নিয়ে সোচ্চার ছিলেন মাস্ক। ২০২০ সালে টুইটার কর্মীদের সঙ্গে এক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি। সেখানে স্প্যাম বট ঠেকানো বা সরাতে দৃঢ় পদক্ষেপের দাবি তুলেছিলেন টেসলা প্রধান।
গত শুক্রবার অধিগ্রহণ পরিকল্পনা থেকে সরে আসার সিদ্ধান্ত জানিয়ে লেখা চিঠিতে তিনটি অভিযোগ তোলেন মাস্ক। তার প্রথমটিই হচ্ছে, স্প্যাম ও ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে পর্যাপ্ত তথ্য শেয়ার না করে চুক্তি লঙ্ঘন করেছে টুইটার। দ্বিতীয় অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্রের তদারকি সংস্থা সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) কাছে স্প্যাম অ্যাকাউন্ট নিয়ে ভুয়া তথ্য শেয়ার করেছে তারা। তৃতীয় অভিযোগ হচ্ছে, প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ কয়েকজন কর্মী ছাঁটাইয়ের সময় মাস্কের সঙ্গে পরামর্শ করেনি টুইটার।
মাসখানেক আগে স্প্যাম ও বট নিয়ে টেসলারাতি নামে এক টুইটার অ্যাকাউন্টের প্রশ্নের জবাবে মাস্ক বলেন, ২২ কোটি ৯০ লাখ অ্যাকাউন্টের ২০ শতাংশই স্প্যাম বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট। টুইটারের দাবির চেয়ে চার গুণ কিংবা তার চেয়েও বেশি।
যুক্তরাষ্ট্রের তদারকি সংস্থা এসইসির কাছে পেশ করা নথিতে টুইটারের দাবি, নিজস্ব জরিপের ভিত্তিতে তারা দেখতে পেয়েছে প্লাটফর্মটির ৫ শতাংশ অ্যাকাউন্ট স্প্যাম বা বট। ইলোন মাস্কের দাবি, মাত্র ১০০টি নমুনা অ্যাকাউন্টের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে মাইক্রোব্লগিং সাইটটি।
টুইটারের উপাত্ত নিয়ে মাস্কের সন্দেহের পরিপ্রেক্ষিতে আরো কয়েকজন ব্যক্তি ও সংস্থা স্বাধীন জরিপ চালিয়েছেন। স্পার্কতরো নামে একটি অডিয়েন্স রিসার্চ টুলের সহপ্রতিষ্ঠাতা র্যান্ড ফিশকিন বলেন, ৯০ দিনে আমরা ৪৪ হাজার ৫৮টি টুইটার অ্যাকাউন্টের ওপর জরিপ চালিয়েছি। সেখানে প্রায় ১৯ দশমিক ৪২ শতাংশ অ্যাকাউন্ট স্প্যাম বা ভুয়া হিসেবে পেয়েছি।
টুইটার সিইও পরাগ আগারওয়াল মাসখানেক আগে সিরিজ টুইটে স্বীকার করেছেন, প্রতিদিন তারা ১০ লাখের মতো স্প্যাম অ্যাকাউন্ট ব্লক করেন।
মাস্ক তখন বেশ জোর দিয়ে বলেছিলেন, সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মটি অধিগ্রহণে শেয়ারপ্রতি ৫৪ ডলার ২০ সেন্ট দর নির্ধারণের ক্ষেত্রে আমাদের ভিত্তি ছিল এসইসির কাছে পেশ করা উপাত্ত। যেহেতু ওই উপাত্তে সমস্যা রয়েছে, তাহলে চুক্তিতে পরিবর্তন আবশ্যক।
এদিকে মাস্কের বিরুদ্ধে মামলায় বেশকিছু অভিযোগ তুলেছে টুইটার। শুরু থেকেই একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করে টুইটারের ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত করেছেন বলে অভিযোগ তাদের। অধিগ্রহণ পরিকল্পনা থেকে বেরিয়ে এসে টুইটারের প্রতিদ্বন্দ্বী প্লাটফর্ম তৈরি করতে পারেন মাস্ক। এ কারণে টেসলা প্রধানের সঙ্গে স্প্যাম বটের বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করা হয়নি বলে জানায় তারা। এছাড়া টুইটার জানায়, চুক্তি চূড়ান্তের আগে স্প্যাম বটের তথ্য জানতে চাননি মাস্ক। দিলাওয়ারের আদালতে দায়ের করা মামলায় সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে চারদিনের শুনানির দাবি তুলেছেন টুইটারের কৌঁসুলিরা।
অধিগ্রহণ পরিকল্পনা নিয়ে অচলাবস্থায় বিশ্লেষকরা বলছেন, আইনি লড়াইয়ে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে থাকবে টুইটার। ইলোন মাস্ক ও তার আইনজীবীরা যেমনটা মনে করেছিল চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসা ততটা সহজ হবে বলে মনে করেন না তারা।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

‘ফলো’ না করা অ্যাকাউন্টের টুইটও দেখা যাবে

বার্তাকক্ষ ইলন মাস্কের হাতে যাওয়ার পর থেকে একের পর এক পরিবর্তন আসছে টুইটারে। বিশ্বের...

৫০ লাখ ইউটিউব চ্যানেল যে কারণে বাতিল হলো

বার্তাকক্ষ ইউটিউব এখন শুধুই বিনোদনের প্ল্যাটফর্ম নয়, অর্থ উপার্জন করার অন্যতম মাধ্যম। বিশ্বে কোটি...

স্মার্টফোনকেই বানিয়ে নিন ডাম্বফোন

বার্তাকক্ষ সবার হাতেই এখন স্মার্টফোন। এটি ছাড়া এক মুহূর্তও চিন্তা করা যায় না। কখনো...