Thursday, December 1, 2022
হোম জাতীয়ভেঙে ফেলা হচ্ছে গুলশান পৌরসভার অফিস

ভেঙে ফেলা হচ্ছে গুলশান পৌরসভার অফিস

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

পুতিনের রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা দেখছে না ইউক্রেন

বার্তাকক্ষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের নেতারা একটি কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে ৯ মাস দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান...

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তানভীর সিকদার

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন তরুণ কবি তানভীর সিকদার। তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘সেফটিপিনে গেঁথে...

১১২ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিলো ইংল্যান্ড

বার্তাকক্ষ সব শঙ্কাকে পাশ কাঁটিয়ে নির্ধারিত সময়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামে ইংল্যান্ড। বৃহস্পতিবার (১...

আইজিপির নেতৃত্বে আইনের শাসনের ক্ষেত্র প্রস্তুতের আশা বিএনপি মহাসচিবের

বার্তাকক্ষ ‘রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দায়ের বন্ধ করা এবং দায়েরকৃত সব...

বার্তাকক্ষ
ভেঙে ফেলা হচ্ছে স্মৃতি বিজড়িত গুলশান পৌরসভার অফিস। এটি রাজধানীর গুলশান -২ এর ৯০ নম্বর রোডে অবস্থিত। বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সকালে গিয়ে দেখা যায় এখানে ভবনগুলো ভেঙে ফেলা হচ্ছে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) সূত্রে জানা গেছে, এই ভবনটি ভেঙে সেখানে ডিএনসিসি-র মেয়রের বাসভবন নির্মাণ করা হতে পারে। জানা যায়, ভবনটি গুলশান পৌরসভার ভবন ব্যবহৃত হতো। এটি ১৮৮২ সালে ঢাকা মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত হয়।
সিটি করপোরেশনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, আমরা ১৯৮৫ সালে ভবনটি ৯ নং জোনে হিসেবে ব্যবহার করা হতো। ২০১১ ঢাকাকে দুই করপোরেশনে বিভক্তির পর ঢাকা উত্তর সিটির ৩ নম্বর জোন। পরে রাজস্ব ও আইন কর্মকর্তার কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার হতো। সম্প্রতি দু’টি বিভাগকে গুলশানের ৪৬ নম্বর রোডের প্রধান কার্যালয়ের ৬ষ্ঠ তলায় স্থানান্তর করা হয়।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের পদ সংখ্যা বাড়ছে

বার্তাকক্ষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও...

বিশেষ ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণের ক্ষমতা পেলো সরকার

বার্তাকক্ষ বিশেষ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) নয়, ভোক্তাপর্যায়ে জ্বালানি তেল, বিদ্যুৎ ও...

ডিসেম্বরে শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা, সাগরে হতে পারে দুটি লঘুচাপ

বার্তাকক্ষ তাপমাত্রা ক্রমেই কমে ডিসেম্বর মাসের শেষার্ধে দেশে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে...