Thursday, October 6, 2022
হোম আজকের পত্রিকাকালীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয় : ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার না থাকায় অস্বস্তিতে মায়েরা

কালীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয় : ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার না থাকায় অস্বস্তিতে মায়েরা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে

কিছু উন্নয়ন প্রকল্প ধীর গতির কারণে জনভোগান্তি চরমে উঠেছে। এছাড়া অপরিকল্পিত খোঁড়াখুঁড়ি তো চলছে।...

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

কালীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয়ে অফিস চলাকালীন পুরুষদের পাশাপাশি সেবা প্রত্যাশী অনেক নারীরাও আসেন। তাদের অনেকের সাথে দুগ্ধপোষ্য শিশুও থাকে। কিন্তু কার্যালয়টিতে কোন ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার নেই। ফলে শিশুদের ক্ষুধা ও পিপাসা লাগলে খোলামেলা পরিবেশে স্তন্যদান করাতে গিয়ে অস্বস্তির মধ্যে পড়েন মায়েরা। অনেক মানুষের ভিড়ে মায়েরা বুকের দুধ পান করাতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না।
স্তন্যদায়ী মায়েদের এই অসুবিধা ঘোচাতে কালীগঞ্জ উপজেলার কোথাও ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার বা কর্ণার নেই। সুন্দর, সুস্থ ও সবলভাবে শিশুর বেড়ে ওঠা ও নিরাপদ মাতৃত্ব নিশ্চিতে সরকারি-বেসরকারি প্রতিটি কর্মস্থলে ডে কেয়ার সেন্টার ও মাতৃদুগ্ধ দানকক্ষ স্থাপন করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৯ সালে নির্দেশনা দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর ওই নির্দেশনা অনেক প্রতিষ্ঠানে বাস্তবায়ন হলেও কালীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয়ে কোনো ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার স্থাপন হয়নি।
রোবাবার কালীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয়ে বেজপাড়া গ্রামের শিপ্রা দাস নামে এক নারী তার ১০ মাসের শিশু সন্তানকে নিয়ে ত্রাণ নিতে আসেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার অফিসের বারান্দায় দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষায় থাকাকালীন তাকে বেঞ্চে বসেই বাচ্চাকে দুধ পান করাতে দেখা যায়। অফিসে চলাচলকারী লোকজনের সামনে বাচ্চাকে দুধ পান করাতে গিয়ে তিনি বেশ অস্বস্তিতে পড়েন ও লজ্জাবোধ করেন বলে তিনি জানান। তার পাশেই বসে থাকা লক্ষ্মী রানী ও সুমনা দাসের কোলেও ছিলো দুগ্ধপোষ্য শিশু। একই সময় দেখা যায় কালীগঞ্জ উপজেলা হল রুমের সামনে বসে একজন মা তার সন্তানকে দুধ পান করাচ্ছেন।
কালীগঞ্জ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তাসলিমা বেগম জানান, উপজেলা কার্যালয়ের কোথাও ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার নেই। বিষয়টি তিনি উপজেলা চেয়ারম্যানকে জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার স্থাপনের ব্যাপারে আমাদের আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি নেই। বিষয়টি নিয়ে ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলবো।

কালীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর সিদ্দিক ঠান্ডু জানান, দুগ্ধদানকারী নারীদের জন্য অবশ্যই ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণারের প্রয়োজন রয়েছে। উপজেলা কার্যালয়ের কোথাও সেটি না থাকাটা দুঃখজনক। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সাথে কথা বলে দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...