Thursday, September 29, 2022
হোম আইটিবিদ্যুৎ সাশ্রয়ে ইন্টেলের নতুন কুলিং প্রযুক্তি

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে ইন্টেলের নতুন কুলিং প্রযুক্তি

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলকে নিজের সঙ্গে যুক্ত করছে রাশিয়া

বার্তাকক্ষ রাশিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে নিজের সঙ্গে যুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে। শুক্রবার এই অঞ্চলগুলোকে...

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার এক বছরে ক্যাম্পে আরও ২৭ খুন

বার্তাকক্ষ কক্সবাজারের আশ্রয় ক্যাম্পে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার এক বছর পূর্ণ হলো বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর)।...

মহেশপুরে ৪০ পিচ সোনার বারসহ ১জন আটক

আব্দুস সেলিম, মহেশপুর ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর সীমান্ত থেকে ৪০ পিচ সোনার বারসহ শওকত আলী...

ডিমের উৎপাদন খরচ ৬ টাকা, দাম কেন ১৩: কৃষিমন্ত্রী

বার্তাকক্ষ ফার্মের মুরগির ডিমের উৎপাদন খরচ ৫ থেকে ৬ টাকা বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক।...

বার্তাকক্ষ
বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে থাকা ডাটা সেন্টারগুলোর বিদ্যুৎ ব্যবহারের পাশাপাশি পরিবেশের ওপর নেতিবাচক প্রভাব কমাতে ও কর্মক্ষমতা বাড়াতে নতুন কুলিং প্রযুক্তি ব্যবহারের উদ্যোগ নিয়েছে ইন্টেল। খবর গিজচায়না।
গ্রিন রেভল্যুশন কুলিং করপোরেশনের (জিআরসি) সঙ্গে যৌথভাবে লিকুইড ইমারশন কুলিং নামে ইন্টেল একটি শ্বেতপত্র স্বাক্ষর করেছে। ডাটা সেন্টার এয়ার কুলিং প্রযুক্তির পরিবর্তে লিকুইড কুলিং প্রযুক্তি ব্যবহারের অংশ হিসেবেই এ উদ্যোগ। জানুয়ারির দিকে প্রতিষ্ঠান দুটি পরিবেশের ওপর ডিজিটাল অবকাঠামোর ক্ষতিকর প্রভাব কমাতে কয়েক বছরের জন্য একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের ঘোষণা দেয়।
জিআরসি মূলত লিকুইড কুলিং প্রযুক্তি পরিচালনায় সিদ্ধহস্ত প্রতিষ্ঠান। অন্যদিকে মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি জায়ান্টটি জানিয়েছিল, তারা লিকুইড ইমারশন কুলিং প্রযুক্তিসংক্রান্ত গবেষণা ও পরীক্ষা চালানোর জন্য নিজস্ব ল্যাবরেটরি স্থাপন করেছে। ডাটা সেন্টারগুলো বিশ্বের মোট বিদ্যুতের ১ দশমিক ৫ থেকে ২ শতাংশ ব্যবহার করে। যদি এখনই নিয়ন্ত্রণ না করা হয়, তাহলে এক দশকে এর হার ১৩ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে।
মূলত ডিজিটাল খাতে ৪০ শতাংশ বিদ্যুৎ ব্যবহারের পেছনে কম্পিউটিংয়ের সম্পৃক্ততা খুবই কম। ডাটা সেন্টার ও কম্পিউটার সার্ভারের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণেই বেশি বিদ্যুৎ ব্যয় হয়। প্রসেসরের শক্তি দিন দিন বাড়তে থাকায় এয়ার কুলিং প্রযুক্তির মাধ্যমে আর সার্ভারকে সহায়তা দেয়া যাচ্ছে না। কেননা তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে কুলিং ফ্যানেরও সীমাবদ্ধতা রয়েছে।
ইন্টেল ও জিআরসির তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে বিশ্বের অনেক ডাটা সেন্টারের পরিচালকরা এ বিষয়ে অবগত। যে কারণে তিন-চতুর্থাংশ প্রতিষ্ঠান টেকসইয়ের বিষয়টিকে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার হাতিয়ার হিসেবে দেখছে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

ফোন থেকে এই অ্যাপগুলো ডিলিট করুন এখনই, না হলে বিপদ

বার্তাকক্ষ সম্প্রতি একটি সুরক্ষা সংস্থা ভয়ংকর তথ্য সামনে এনেছে। এতে বলা হয়েছে, অ্যাপ স্টোর ও...

এক চার্জে ৩০ দিন চলবে স্মার্টওয়াচ

বার্তাকক্ষ ভারতের বাজারে আসছে ওয়ানপ্লাসের নর্ড ওয়াচ। এই প্রথম নর্ড সিরিজের স্মার্টওয়াচ আসছে ভারতের বাজারে।...

ফেসবুকে যেসব কাজ করলে বিপদে পড়বেন

বার্তাকক্ষ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক। মেটার মালিকানাধীন সাইটটি ব্যবহারকারীদের নানান সুবিধা...