Thursday, October 6, 2022
হোম খেলাঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, রোমাঞ্চিত নারী ক্রিকেটাররা

ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, রোমাঞ্চিত নারী ক্রিকেটাররা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে

কিছু উন্নয়ন প্রকল্প ধীর গতির কারণে জনভোগান্তি চরমে উঠেছে। এছাড়া অপরিকল্পিত খোঁড়াখুঁড়ি তো চলছে।...

কেশবপুরে কৃষকলীগের পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন

সোহেল পারভেজ, কেশবপুর কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেছেন কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার সংগঠনের উপজেলা,...

দেবহাটায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপন

দেবহাটা প্রতিনিধি : ‘সময়ের অঙ্গীকার কন্যা শিশুর অধিকার’ প্রতিপ্রাদ্য নিয়ে দেবহাটায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উদ্যাপন...

শার্শায় ভুল মানুষের দ্বারা রাজনীতি পরিচালিত হওয়ায় প্রকৃত নেতাকর্মীরা অত্যাচার জুলুম নির্যাতনের শিকার : আশরাফুল আলম লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল...

বার্তাকক্ষ
যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত আইসিসির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) থেকে দেশের ক্রিকেটের জন্য সুসংবাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। বিডিংয়ে বাংলাদেশ ২০২৪ সালের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক হয়েছে। যা নারী ক্রিকেটকে আরও এগিয়ে নেবে বলে আইসিসির বিশ্বাস। দুই বছর পর ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের খবরে রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যাচ্ছে নারী ক্রিকেটারদের।
স্পিন অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদ ও ব্যাটসম্যান নিগার সুলতানা জ্যোতি জানান, বিশ্বমঞ্চে ভালো করার এটাই হবে সবচেয়ে বড় সুযোগ। রুমানা বলেছেন, ‘গতকাল রাতে খবরটা পেয়ে খুব ভালো লাগছে। দশ বছর পর আমাদের দেশে আমরা বিশ্বকাপ খেলতে পারবো। এটা আমাদের জন্য অনেক গৌরবের। নিজেদের জায়গায় খেলার ফলে আলাদা একটা সুবিধা পাওয়া যায়।’
নিগার মিরপুরে বলেছেন, ‘খবরটা শোনার পর আমি খুব রোমাঞ্চিত। কারণ নিজের দেশে বিশ্বকাপ খেলার মতো সৌভাগ্য সবার হয় না। জানি না কী হবে… বেঁচে থাকলে খেলার সুযোগ পেলে আমাদের জন্য বড় একটা বিষয়। নিজের দেশের একটা বাড়তি সুবিধা থাকে, দর্শকদের সমর্থন থাকে যা দলকে উজ্জীবিত করতে অনেক বেশি সাহায্য করে।’
২০১৪ সালে ছেলেদের ও মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশে। তখন প্রতিযোগিতা দুটি একসঙ্গে আয়োজিত হতো। ২০২৪ সালেই প্রথমবারের মতো কেবল মেয়েদের কোনো বড় প্রতিযোগিতা আয়োজন করবে বাংলাদেশ। ওই বছরের সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সেখানে অংশ নেবে মোট ১০টি দল। আসরে সবমিলিয়ে ম্যাচ হবে ২৩টি।
বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী বলেছেন, ‘এটি (টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ) বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটের জন্য একটি বাঁক বদলের মুহূর্ত হবে। কারণ, এই ইভেন্টটি ছোট ছোট মেয়েদের এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষী নারী ক্রিকেটারদের বড় স্বপ্ন দেখাতে অনুপ্রাণিত করবে।’
নিগারের কন্ঠেও ছিল একই সুর,‘আইসিসি যখন থেকে নারীদের ইভেন্টগুলো ভাগাভাগি করছিল তখন থেকে অভিপ্রায় কিন্তু এটাই ছিল যেন আইসিসি নারী ক্রিকেটকে আরও বেশি ছড়িয়ে দিতে পারে। আমার কাছে মনে হয়, যেহেতু শুধু এটা নারীদের বিশ্বকাপ, বিশ্বজুড়ে ভালো নজরে থাকবে, আর বাংলাদেশের ক্রিকেটেও মনোযোগ থাকবে।’

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

সিলেটের উইকেট নিয়ে বাংলাদেশ কোচের ক্ষোভ

বার্তাকক্ষ শিরোপার স্বপ্ন নিয়েই নারী এশিয়া কাপে খেলছে বাংলাদেশ। তাও আবার ঘরের মাঠে। প্রথম ম্যাচ...

‘আপনারা হয়তো মনে করছেন আমি এক চোখ নিয়েই খেলতে পারব’

বার্তাকক্ষ ২০২৩ আইপিএল মৌসুমে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুতে ফিরছেন, নিশ্চিত করলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু খেলোয়াড়...

অদ্ভুত কারণে দল থেকে বাদ পড়া আরও ৫ খেলোয়াড়

বার্তাকক্ষ টুর্নামেন্ট বা সিরিজের আগে চোটের কারণে খেলোয়াড়দের দল থেকে ছিটকে পড়ার ঘটনা নতুন কিছু...