Friday, September 30, 2022
হোম শহর-গ্রামঝিনাইদহপ্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

চাকরির নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করায় ৩ জন গ্রেফতার

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা পাটকেলঘাটায় কোয়েষ্ঠ ফার্মা নামে একটি কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া কাগজপত্র...

মাত্র দু বছরে মৃত্যুর মুখে নদী : খরস্রোতা শোলমারি এখন ৩-৪ মিটারের সরু নালা

খুলনা সংবাদদাতা খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুক চিরে বয়ে গেছে শোলমারি নদী। এর স্রোত ও গভীরতা...

জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য দুর্নীতি দূর করতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার

খুলনা সংবাদদাতা ‘তথ্য প্রযুক্তির যুগে জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত হোক’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৯...

তালায় দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা

শিরিনা সুলতানা, তালা : সাতক্ষীরার তালায় সামাজিক সম্প্রীতি ও দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভা...

কালীগঞ্জ সংবাদদাতা
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কৃষকদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজস্ব বাজেটের আওতাধীন রবি, খরিপ-১ ও খরিপ-২ মৌসুমের প্রকল্পের আওতায় তাদের এই অর্থ দেওয়ার কথা ছিল। প্রান্তিক কৃষকের ধান, সরিষা ও ভুট্টা পরিচর্যা বাবদ ১৫শ’ টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও কৃষকদের ১৪শ’ টাকা করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কালীগঞ্জ নিমতলা মসজিদ সংলগ্ন মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী একটি দোকান থেকে কৃষি অফিস থেকে আনা টোকেন জমা দিয়ে নগদ অথবা বিকাশের মাধ্যমে ১৪শ’ টাকা করে দেওয়া হয়েছে।
২০২১-২২ অর্থবছরে মোট ৩৩৩ জন কৃষক এই সুবিধার আওতায় আসলেও ২৪৩ জনকে ১০০ টাকা কম করে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছে কৃষকরা। তাদের অভিযোগ, এই প্রকল্পে ২৪৩ জন কৃষকের কাছ থেকে ২৪ হাজার ৬০০ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।
সরজমিনে উপজেলার নিয়ামতপুর, রাখালগাছি ইউনিয়নের কৃষক রকিব, মোমিনুর, নুরুল মালিতা, রতন ঘোষ, হামিদ, চানদালী ও সমির খাঁ’র সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, আমরা বিকাশের মাধ্যমে ১৪শ’ টাকা পেয়েছি। খরচ বাদে এক হাজার ৩৭০ টাকা উঠাতে পেরেছি। অথচ আমাদের ১৫শ’ টাকা করে প্রত্যেক কৃষকের পাওয়ার কথা ছিল বলে শুনেছি। সরকার আমাদের জন্য টাকা দিচ্ছে। তার মধ্যে আবার ১০০ টাকা করে কেন কেটে রাখবে? কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শিকদার মো. মোহায়মেন আক্তার কৃষকের অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘এই প্রকল্পে ২৪ হাজার ৬০০ টাকা অতিরিক্ত আছে। অডিট খরচসহ আনুসঙ্গিক ব্যয় তো থাকেই। যে কারণে টাকাটা কেটে রেখেছি। বোঝেনই তো স্যাররা আছেন, তাদেরকে খুশি রাখতে হয়। অন্য উপজেলাগুলোতে ১৫শ’ করে দিলেও তারা অন্য একটি প্রকল্পের টাকা থেকে এই প্রকল্পের খরচের টাকা সমন্বয় করে নেয়। আমি সেটা না করে এই প্রকল্পের খরচের টাকা এই প্রকল্প থেকেই কেটে রেখেছি। এটা নিয়ে যখন অভিযোগ আসছে তখন যাদের টাকা কেটে রাখা হয়েছে প্রত্যেককেই ১০০ টাকা করে আমি ফেরত দেবো। বিষয়টি ম্যানেজ করেন দয়া করে। ঝিনাইদহ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. আজগর আলী বলেন, কৃষকের টাকা আত্মসাতের ঘটনা ঘটে থাকলে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। ঘটনার সত্যতা থাকলে তদন্ত কমিটি গঠন করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। যশোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক ড. মো. একলাছ উদ্দীন বলেন, এমন ঘটনা ঘটলে তা খতিয়ে দেখা হবে। এই ধরনের কাজের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের কোনও ছাড় দেওয়া হবে না। এ ঘটনায় দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে কালীগঞ্জের প্রান্তিক কৃষকরা।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

মহেশপুরে ৪০ পিচ সোনার বারসহ ১জন আটক

আব্দুস সেলিম, মহেশপুর ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর সীমান্ত থেকে ৪০ পিচ সোনার বারসহ শওকত আলী...

মোংলায় ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

মোংলা সংবাদদাতা বাগেরহাটের মোংলায় সাত বছর বয়সি এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে তার চাচার...

যশোরে অস্ত্রসহ দুই যুবক আটক ডিবি পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক যশোরে অস্ত্রসহ দুই যুবককে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। আটককৃতরা হলেন, শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া...