Friday, September 30, 2022
হোম আজকের পত্রিকাযশোরে চাঞ্চল্যকর শিশু শর্মীলা ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড

যশোরে চাঞ্চল্যকর শিশু শর্মীলা ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

চাকরির নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করায় ৩ জন গ্রেফতার

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা পাটকেলঘাটায় কোয়েষ্ঠ ফার্মা নামে একটি কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া কাগজপত্র...

মাত্র দু বছরে মৃত্যুর মুখে নদী : খরস্রোতা শোলমারি এখন ৩-৪ মিটারের সরু নালা

খুলনা সংবাদদাতা খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুক চিরে বয়ে গেছে শোলমারি নদী। এর স্রোত ও গভীরতা...

জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য দুর্নীতি দূর করতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার

খুলনা সংবাদদাতা ‘তথ্য প্রযুক্তির যুগে জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত হোক’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৯...

তালায় দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা

শিরিনা সুলতানা, তালা : সাতক্ষীরার তালায় সামাজিক সম্প্রীতি ও দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভা...

নিজস্ব প্রতিবেদক

যশোরের চৌগাছায় চাঞ্চল্যকর শিশু শর্মীলা ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে একজনকে মৃত্যুদ- ও একলাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার যশোরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুাল-২ এর বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) নীলুফার শিরিন এই দণ্ড ঘোষণা করেন।

মৃতুদ-প্রাপ্ত তজিবর রহমান (৫০) যশোরের চৌগাছা উপজেলার ফকিরাবাদ এলাকার বাসিন্দা ও মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বিলধলা রামকৃষ্ণপুর এলাকার দবির উদ্দিন দরবার আলীর ছেলে। ধর্ষণ ও হত্যাকা-ের শিকার শর্মীলা খাতুন (৯) চৌগাছা উপজেলার ফকিরাবাদ গ্রামের হাফিজুর রহমান কালুর মেয়ে ও হাকিমপুর নূরানী মাদরাসার তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল’র স্পেশাল পিপি মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৮ সালের ২২ জুন সন্ধ্যায় চৌগাছা উপজেলার ফকিরাবাদ এলাকার বাসিন্দা হাফিজুর রহমান কালুর মেয়ে শর্মীলা খাতুন প্রতিবেশি তৈমুর হোসেন খান’র আম বাগানে আম কুড়াতে যায়। সন্ধ্যা পার হয়ে রাতেও মেয়ে বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের সদস্যরা খোজাখুজি করেন।
২৬ জুন সন্ধ্যায় তারা জানতে পারেন যে, পাশেই হামিকপুর গ্রামের জামান মৃধা’র আম বাগানে একটি পচাগলা মৃতদেহ পড়ে আছে। সংবাদ পেয়ে তারা পচাগলা মৃতদেহ দেখতে পান। পরবর্তীতে হাসপাতালে শর্মীলা খাতুনের পরিহিত লাল ঘটি হাফ প্যান্ট, হাত এবং পায়ের পাতা দেখে মৃতদেহ সনাক্ত করেন।
এ ঘটনায় আটক আসামি তজিবর রহমান বাদীর সামনে পুলিশের কাছে স্বীকার করে আসামী তার যৌনকার্য চরিতার্থ করার লক্ষে গামছা দিয়ে মুখ চেপে ধরলে শর্মীলা খাতুন মারা যায়। হত্যার পর মৃতদেহ মেহগনি গাছের পাতা দিয়ে ঢেকে রাখেন। পরবর্তীতে হাফিজুর রহমান কালু বাদী হয়ে ২৭ জুন চৌগাছা থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার তদন্ত করে আসামি তজিবর রহমানের বিরুদ্ধে ওই বছরই ৬ সেপ্টেম্বর চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি তজিবর রহমান দোষী প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে মৃত্যুদ- এবং একলাখ টাকা জরিমানা করেন। দ-প্রাপ্ত আসামি তজিবর রহমান কারাগারে আটক রয়েছেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল’র স্পেশাল পিপি মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল জানান, আসামি তজিবর রহমান শিশু শর্মীলা খাতুনকে প্রথমে ধর্ষণ করে। পরে শ্বাসরোধে হত্যা করে মরদেহ বাগানে ঢেকে রাখে। এই মামলায় ১৬ জন সাক্ষীর মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষ ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য উপস্থাপন করে। সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আসামি দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদ- ও একলাখ টাকা জরিমানা করেছেন। রাষ্ট্রপক্ষ এই রায়ে সন্তুষ্ট।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

চাকরির নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করায় ৩ জন গ্রেফতার

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা পাটকেলঘাটায় কোয়েষ্ঠ ফার্মা নামে একটি কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া কাগজপত্র...

মাত্র দু বছরে মৃত্যুর মুখে নদী : খরস্রোতা শোলমারি এখন ৩-৪ মিটারের সরু নালা

খুলনা সংবাদদাতা খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুক চিরে বয়ে গেছে শোলমারি নদী। এর স্রোত ও গভীরতা...

তালায় দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা

শিরিনা সুলতানা, তালা : সাতক্ষীরার তালায় সামাজিক সম্প্রীতি ও দুধে ভেজাল প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভা...