Tuesday, September 27, 2022
হোম সম্পাদকীয়কঠোর হোক বাংলাদেশের অবস্থান

কঠোর হোক বাংলাদেশের অবস্থান

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

শিক্ষা কার্যক্রমের জন্য নীতিমালা করছে ইউজিসি

বার্তাকক্ষ দেশে নতুন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পর অনুমোদন ছাড়া শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করার বিষয়ে একটি...

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য ৮ নির্দেশনা

বার্তাকক্ষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারে প্রাথমিকের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শিক্ষকদের সতর্ক করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)।...

শাওমি এবার বর্ষসেরা উদ্ভাবনী কোম্পানির তালিকায়

বার্তাকক্ষ শাওমি এবার বছরের সেরা ৫০ উদ্ভাবনী কোম্পানির তালিকায় স্থান পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন কনসালটিং গ্রুপ...

গ্রামীণফোনের কিছু সেবা পেতে সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন

বার্তাকক্ষ কারিগরি উন্নয়নের জন্য গ্রামীণফোনের কিছু সেবা পেতে গ্রাহকদের সমস্যা হতে পারে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।...

আকাশসীমা লঙ্ঘন করে সীমান্তে মিয়ানমারের মর্টারশেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটছে বারবার। প্রতিবারই ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে কড়া প্রতিবাদ জানানোর পরও তারা যেন কর্ণপাত করছে না। এমতাবস্থায় বাংলাদেশের করণীয় কী- তা দ্রুত ঠিক করতে হবে। কূটনৈতিক তৎপরতার সঙ্গে সঙ্গে সামরিক জবাবের বিষয়টিও সামনে আসছে। বাংলাদেশ মিয়ানমারকে শক্ত মেসেজ দিতে হবে। না হয় বাংলাদেশকে দুর্বল ভেবে এমন ঘটনা ঘটার সুযোগ নেবে। বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী প্রদেশ রাখাইনসহ মিয়ানমারের বিভিন্ন অঞ্চলে দেশটির সেনাবাহিনীর সঙ্গে স্থানীয় নৃগোষ্ঠীগুলোর তুমুল লড়াই চলছে। গণতন্ত্রপন্থিদের আক্রমণে দেশটির সামরিক বাহিনী এখন বেশ নাজুক অবস্থায় আছে। অর্থনৈতিক পরিস্থিতিও বেশ শোচনীয়। রাজনৈতিকভাবে হতবিহ্বল হয়ে তাতমাদো এখন গায়ের জোরেই ক্ষমতা ধরে রেখেছে। আরাকান আর্মি ওখানে তাতমাদোর অনেক ঘাঁটি দখল করে নিয়েছে। সেই ঘাঁটিগুলোকে পুনরুদ্ধারের জন্য তারা জানপ্রাণ দিয়ে যুদ্ধ করছে। রাখাইন থেকে তারা যদি আরাকান আর্মিকে সরাতে না পারে তাহলে তা জান্তা সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে। সে লড়াইয়েরই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আমাদের এখানে এসে পড়ছে। গত শুক্রবার রাতে তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমারের ছোড়া মর্টারশেল বিস্ফোরণে ইকবাল নামে এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো পাঁচজন আহত হয়েছেন। নিহত ইকবাল ও আহতরা তুমব্রু সীমান্তে নো ম্যান্স ল্যান্ডের বাসিন্দা। গত এক মাস ধরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী তুমব্রু, ঘুমধুম, রেজু এবং আমতলিসহ বিস্তীর্ণ এলাকায় মিয়ানমারের সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে দেশটির সেনাবাহিনী ও সীমান্তরক্ষী বিজিপির ব্যাপক সংঘর্ষ চলছে। বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের আচারতলী, ঘুমধুুম ইউনিয়নের জলপাইতলী, তুমব্রু, বাইশপাড়ি, মগপাড়া, রেজু গর্জনবুনিয়া, বরইতলী, ফাত্তারঝিরি, উত্তরপাড়া, কোনারপাড়া, পশ্চিমপাড়া ও হিন্দুপাড়া গ্রামের মানুষের দিন-রাত কাটছে ভয়ের মধ্যে। এর মধ্যেই সীমান্তের কাছাকাছি এসব এলাকার মর্টারশেল বিস্ফোরণের পর থেকে আতঙ্কে থাকা ৩৫টি পরিবারকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ নানা উদ্যোগ গ্রহণ করলেও বিষয়টিকে মিয়ানমার সব সময় এড়িয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বারবার বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে বাংলাদেশের অবস্থান এবং সমাধানের জন্য বক্তব্য তুলে ধরেছেন। অনেক দেশ রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের পক্ষে অবস্থান নিলেও ভূরাজনীতির কারণে অনেক দেশ এ ব্যাপারে বিরত থেকেছে। এর মধ্যে মিয়ানমারের সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে দেশটির সেনাবাহিনী ও সীমান্তরক্ষী বিজিপির ব্যাপক সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বাংলাদেশের ভূখণ্ডে মর্টারশেল নিক্ষেপের ঘটনায় সীমান্তরেখায় জড়ো হচ্ছে লাখো রোহিঙ্গা। সীমান্তে মিয়ানমারের মর্টারশেল নিক্ষেপ, রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে প্রবেশের চেষ্টা, যুদ্ধাবস্থার সৃষ্টি- এটাকে আগ্রাসন হিসেবেই দেখছে বাংলাদেশ। সীমান্ত দিয়ে আর একটি রোহিঙ্গাও যেন বাংলাদেশে প্রবেশ না করতে পারে তার জন্য নজরদারি বাড়াতে হবে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আন্তরিক ভূমিকাও জরুরি। বাংলাদেশের কূটনৈতিক তৎপরতায় এখন চীন ও ভারতকে গুরুত্বের মধ্যে নিতে হবে। এই দুটি দেশকে কাজে লাগাতে পারলে মিয়ানমারের অবস্থার পরিবর্তন হবে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

কর্তৃপক্ষকেই এর দায় নিতে হবে

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের দুর্দান্ত জয়ের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বস্তরে সাবিনাদের উচ্ছ¡সিত প্রশংসা...

এ অবক্ষয় রোধ করতে হবে

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় কেন্দ্র সচিবসহ তিন শিক্ষকের গ্রেপ্তারের...

গ্যাসের দাম সহনীয় রাখুন

সরকার নির্ধারিত দামে বাজারে গ্যাসের সিলিন্ডার মিলছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার...