Saturday, December 3, 2022
হোম শহর-গ্রামখুলনাখুলনায় ৪০ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছে

খুলনায় ৪০ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছে

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

পয়েন্ট-গোল গড় সমান, তবুও কেন ছিটকে গেলো উরুগুয়ে

বার্তাকক্ষ: গ্রুপ এইচ-এর শেষ রাউন্ডের ম্যাচে উরুগুয়ে ২-০ গোলে হারিয়ে দিল ঘানাকে। তাতেও শেষ ষোলোয়...

সার্বিয়াকে হারিয়ে নকআউটে সুইসরা

বার্তাকক্ষ: বিশ্বকাপের নকআউট রাউন্ডে যেতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হতো সার্বিয়াকে। অন্যদিকে ড্র করলেও সুবিধাজনক...

গাড়ির নিচে নারীকে টেনে নেওয়া: ঢাবির সাবেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

বার্তাকক্ষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চাকরিচ্যুত শিক্ষকের প্রাইভেটকারে টেনে নেওয়া রুবিনা আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় শাহবাগ...

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণ, নিহত ৩

বার্তাকক্ষ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কাঁথিতে এক তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাতের এ...

খুলনা সংবাদদাতা
সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি রোববার রাতেই সিত্রাংয়ে রূপ নিয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টি ধেয়ে আসছে উপকূলের দিকে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের বুলেটিন-৯ অনুযায়ী সিত্রাং পায়রা বন্দর থেকে ৩৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। ফলে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা বাড়ছে উপকূলের মানুষের। তারা ছুটছেন আশ্রয়কেন্দ্রে। সোমবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা পৌনে ৬টা পর্যন্ত খুলনার কয়রা, পাইকগাছা, দাকোপ ও বটিয়াঘাটায় ৪০ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন। বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৩০ মেট্রিক টন চাল ও ৫ লাখ টাকা। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণকক্ষ, গঠন করা হয়েছে ১১৬টি মেডিকেল টিম। প্রস্তুত রয়েছে ফায়ার সার্ভিস।
খুলনা জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, খুলনায় ৪০৯টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত ছিল। সেইসঙ্গে স্কুল মিলিয়ে ৫৪৮টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। বিকেল থেকে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে মানুষ আসতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত ৪০ হাজার মানুষ চার উপজেলার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি জানান, খুলনা জেলার ৪ উপকূল উপজেলাবাসীর জন্য জেলা প্রশাসন জি-আর এর ৩০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করেছেন। বিকেল থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে চাল বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া চার উপজেলার জন্য ৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, খুলনা জেলার উপকূলীয় এলাকার ৫৪৮টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যার মধ্যে দাকোপে ১১৮টি, বাটিয়াঘাটায় ২৩টি, ডুমুরিয়ায় ২৫টি, কয়রায় ১১৮টি, পাইকগাছায় ১০৮টি, তেরখাদায় ২২টি, রূপসায় ৩৮টি, ফুলতালায় ২৫টি ও দিঘলিয়া উপজেলায় ৭১টি আশ্রয় কেন্দ্র রয়েছে। যে কোনো দুর্যোগ পরিস্থিতিতে কেন্দ্রগুলোয় মানুষ আশ্রয় নিতে পারবেন। একইসঙ্গে জেলার প্রতিটি উপজেলায় ৫টি এবং প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে মোট ১১৬টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। জেলা-উপজেলা পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালগুলোর জরুরি বিভাগে সার্বক্ষণিক সেবা প্রদানের জন্য ডাক্তার, সেবিকা, ওষুধপত্র ও অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তর সূত্র জানায়, কয়রা উপজেলায় ১০ মেট্রিক টন চাল, নগদ ২ লাখ টাকা, ৪০০ প্যাকেট শুকনো খাবার, পাইকগাছা উপজেলায় ৬ মেট্রিক টন চাল, ১ লাখ নগদ টাকা, ২০০ প্যাকেট শুকনো খাবার, দাকোপ উপজেলায় ১০ মেট্রিক টন চাল, ১.৫০ লাখ টাকা, ৩০০ প্যাকেট শুকনো খাবার, বটিয়াঘাটা উপজেলায় ৪ মেট্রিক টন চাল, ৫০ হাজার নগদ টাকা ও ১০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রতি পরিবারে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ লিটার সয়াবিন, ১ কেজি চিনি ও ১ কেজি লবণ বরাদ্দ করা হয়েছে। এদিকে আইডব্লিউটিএ থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। সিত্রাংয়ের প্রভাবে ক্ষয়-ক্ষতির ঝুঁকিতে রয়েছে খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট জেলা।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির নেতার মৃত্যুতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি অভয়নগর থানার একতারপুর গ্রামতলা কমিটির সাবেক সভাপতি...

মোরেলগঞ্জে উফশী আমন ধানের বাম্পার ফলন, দরে খুশি কৃষক

মোরেলগঞ্জ সংবাদদাতা বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে উফশী আমন ধানের বাম্পার ফলনে বেজায় খুশি কৃষক। অধিক লাভবান এ...

সাতক্ষীরায় ভিজিডি কর্মসূচির আওতায় ২০ হাজার ৯১১ দুস্থ নারী পাচ্ছেন কার্ড

আব্দুল আলিম, সাতক্ষীরা সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সাতক্ষীরায় ভিজিডি...