Wednesday, December 7, 2022
হোম জাতীয়‘ট্রপিক্যাল’ থেকে ‘সিভিয়ার’ হয়ে উঠতে পারে সিত্রাং

‘ট্রপিক্যাল’ থেকে ‘সিভিয়ার’ হয়ে উঠতে পারে সিত্রাং

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সময়োপযোগী পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন

বায়ুদূষণ পরিবেশ ও মানব স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। বায়ুদূষণের অন্যতম উৎস হচ্ছে ধুলাবালি।...

মৈত্রী দিবসের আলোচনায় প্রণয় ভার্মা বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয় ভারত

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীর ক্ষেত্রে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত...

স্কুলে ভর্তি: সরকারিতে এক আসনে ছয় আবেদন, বেসরকারির অধিকাংশ ফাঁকা

বার্তাকক্ষ সরকারি-বেসরকারি স্কুল ভর্তির আবেদন শেষ হয়েছে। সরকারি স্কুলে আসন প্রতি প্রায় ছয়জন করে...

আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৭

বার্তাকক্ষ উত্তর আফগানিস্তানের সবচেয়ে বড় শহরে রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে অন্তত সাত...

বার্তাকক্ষ
ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং-কে এখনও ‘ট্রপিক্যাল সাইক্লোন’ বলা হচ্ছে। তবে বাতাসের গতিবেগ বাড়লে এটি ‘সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্ট্রমে’ রূপ নিতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বিশ্লেষণ করে এমন তথ্যই মিলছে। সবশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, পায়রা বন্দর থেকে সিত্রাং ৩৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। প্রায় ৪০০ কিলোমিটার ব্যসের এই ঝড় সহসহাই উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। আবহাওয়ার সর্বশেষ বিশেষ বুলেটিনে বলা হচ্ছে, সিত্রাংয়ে বাতাসের একটানা গতিবেগ ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাধারণত ট্রপিক্যাল সাইক্লোনে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠতে পারে। অন্যদিকে বাতাসের গতিবেগ ৮৯ থেকে ১১০ হলেই সিভিয়ার সাইক্লোনে রূপ নিতে পারে সিত্রাং। সাধারণত ট্রপিক্যাল সাইক্লোনের আয়তনে বিশাল হয়। এগুলো তৈরি হতে প্রচুর পরিমাণে গরম পানির প্রয়োজন হয়। একমাত্র ইকুয়েটরের কাছাকাছি ৫-৩০ ডিগ্রির মধ্যে মহাসাগরে এমন গরম অবস্থা বিরাজ করে। বাংলাদেশ সাব-ট্রপিক্যাল অঞ্চলে পড়েছে।
আবহাওয়াবিদরা চার ধরনের সাইক্লোনের কথা উল্লেখ করেছেন। এগুলোর মধ্যে ট্রপিক্যাল সাইক্লোনে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠতে পারে। সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্ট্রমে বাতাসের গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ৮৯ থেকে ১১৭ কিলোমিটার। ভেরি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্ট্রমে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১১৮ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠতে পারে। এছাড়া এক্সট্রিমলি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্ট্রমে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬৬ থেকে ২২০ কিলোমিটার হয়ে থাকে। আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোও ৭ (সাত) নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। এই সাত নম্বর বিপদ সংকেতের অর্থ হচ্ছে, বন্দর ছোট বা মাঝারি তীব্রতার ঝঞ্ঝাবহুল এক সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড়ের কবলে নিপতিত। ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটার।  ঝড়টি বন্দরের উপর বা নিকট দিয়ে উপকূল অতিক্রম করতে পারে। আবহাওয়া অধিদফতরের হিসাবে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং এখনও ট্রপিক্যাল সাইক্লোনেই আছে। তবে যেকোনও সময় এর গতি বেড়ে এটি সিভিয়ার সাইক্লোনে পরিণত হতে পারে। এদিকে আবহাওয়া সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আবহাওয়া অধিদফতর আগামীকাল মঙ্গলবার ঝড়ের আঘার হানার যে পূর্বাভাস দিয়েছেন, তা পুরোপুরি ঠিক নয়। কারণ এই ঝড়ের ব্যাস ৪০০ কিলোমিটার। আর ঝড়টি এখন আছে পায়রা বন্দর থেকে ৩৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। সে হিসেবে ঝড়ের অগ্রবর্তী অংশ এখন বাংলাদেশের উপকূলের একেবারেই কাছে অর্থাৎ মাত্র ৯৫ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। এই বিষয়ে জানতে চাইলে জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, এইভাবে একেবার অংক করে এসব ঝড়ের বিষয়ে বলা কঠিন হবে। আমরা সর্বশেষ যে বুলেটিন দিয়েছি তাতে ঝড়ের বাতাসের গতিবেগ ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে ৮৯ থেকে ১১০ গতিবেগ হলেই এই ধরনের ঝড়কে আমরা সিভিয়ার সাইক্লোন বলি। বাংলাদেশের উপকূলের দিকে এগিয়ে আসতে আসতে এর গতি বেড়ে এটি সিভিয়ার সাইক্লোনে পরিণত হওয়ার শঙ্কা রয়েই যাচ্ছে।
এদিকে কখন এই ঝড় আঘাত হানতে পারে জানতে চাইলে তিনি জানান, ঝড়টি ব্যাস ৪০০ কিলোমিটার। সে হিসেবে এখনই এই ঝড়ের অগ্রবর্তী অংশের প্রভাব পড়ছে উপকূলে। এটি যত এগিয়ে আসবে ততই প্রভাব বাড়তে থাকবে। যে গতিতে ঝড়টি এগুচ্ছে সে হিসেবে সন্ধ্যা নাগাদ মূল ঝড়ের বড় অংশ উপকূলে পৌছে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে। তবে ঝড়ের কেন্দ্র পৌছাতে ভোর এবং বাকি অংশ অতিক্রম করতে করতে আগামীকাল দুপুরে হয়ে যেতে পারে বলে তিনি জানান।
প্রসঙ্গত, ঝড়ের প্রভাবে প্রচুর বৃষ্টি প্রায় সারাদেশে হচ্ছে, অনেক আবহাওয়াবিদ মনে করেন, বৃষ্টি বেশি হলে ঝড়ের গতিবেগ কমে যায়, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও তখন কম হয়। এদিকে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানান, সিত্রাং সিভিয়ার সাইক্লোন হিসেবে রূপ নিয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যে উপকূলে আঘাত হানবে। কেন্দ্র আঘাত করবে ভোরে। এই ঝড় উপকূলীয় ১৩ জেলায় মারাত্মক ও ২ জেলায় হাল্কা আঘাত হানতে পারে। তবে বরগুনার পাথড়ঘাটা ও পটুয়াখালীর কলাপাড়া সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

মৈত্রী দিবসের আলোচনায় প্রণয় ভার্মা বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয় ভারত

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীর ক্ষেত্রে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত...

করোনায় মৃত্যু নেই, শনাক্ত ২২

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশে ৫ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে ৬ ডিসেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে কারও...

ডেঙ্গুতে আরও একজনের মৃত্যু, হাসপাতালে ২৬৯

বার্তাকক্ষ ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি...