Saturday, December 3, 2022
হোম আজকের পত্রিকাব্যাংকে চাকরি দেয়ার নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

ব্যাংকে চাকরি দেয়ার নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

গাড়ির নিচে নারীকে টেনে নেওয়া: ঢাবির সাবেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

বার্তাকক্ষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চাকরিচ্যুত শিক্ষকের প্রাইভেটকারে টেনে নেওয়া রুবিনা আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় শাহবাগ...

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণ, নিহত ৩

বার্তাকক্ষ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কাঁথিতে এক তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাতের এ...

বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির নেতার মৃত্যুতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি অভয়নগর থানার একতারপুর গ্রামতলা কমিটির সাবেক সভাপতি...

কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি নিয়ে সতর্কতা ডব্লিউএইচওর

বার্তাকক্ষ কোভিড মোকাবিলায় মানুষের সতর্কতা কমে যাওয়া এই ভাইরাসের মারাত্মক নতুন ভ্যারিয়েন্ট তৈরি করতে...

নিজস্ব প্রতিবেদক
ব্যাংকে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে যশোর আদালতে মামলা হয়েছে। রোববার কেশবপুরের সাতাইশকাটি গ্রামের রবিন কুমার দে’র ছেলে রিপন কুমার দে বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. ইমরান হোসেন অভিযোগটি আমলে নিয়ে আসামিদের প্রতি সমন জারির আদেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলেন, ঝিকরগাছার আলিপুর গ্রামের বিএসএম আলী আকবরের ছেলে সরদার জাকারিয়া সুমন প্রিন্স, দিকদানা গ্রামের কেষ্ট কুন্ডুর ছেলে জয়ন্ত কুন্ডু, বাউসা গ্রামের মৃত বিলাত গাজীর ছেলে ছাকাতুল্লাহ ও মুকুন্দপুর গ্রামের মৃত আতিয়ার রহমানের মোড়লের ছেলে আব্দুল মজিদ মোড়ল। মামলার অভিযোগে জানা গেছে, রিপন কুমার দে এমবিএ পাশ করে ব্যাংকে চাকরির জন্যে চেষ্টা করে আসছেন। এরমধ্যে আসামিরা তাকে জানায় তাদের আত্মীয়-স্বজন ব্যাংলদেশ ব্যাংকে চাকরি করে, সেই সুবাদে তাকে অগ্রণী ব্যাংকে চাকরি পাইয়ে দিতে পারে। এ জন্যে তারা ৭ লাখ টাকা দাবি করেছিলেন। তাদের প্রস্তাবে রাজি হয়ে রিপন কুমারের পরিবার আসামিদের ব্যাংক হিসাব নম্বরে ২০২১ সালের ২৮ মার্চ ১ লাখ টাকা দেয়। এ দিন তারা রিপনের ছবি বায়োডাটা ও সার্টিফিকেটের ফটোকপি নিয়ে ১ বছরের মধ্যে চাকরি দেবে বলে জানিয়েছিলেন। ওই বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর আরও ৩০ হাজার টাকা দেয়া হয় আসামিদের হিসাব নম্বরে। নয় মাস পর আসামিরা রিপন কুমারকে ঢাকায় তাদের অফিসে নিয়ে যায় এবং অগ্রণী ব্যাংকে নিয়োগের কিছু কাগজপত্র দেখায়। রিপন কুমার বাড়িতে এসে দাবিকৃত টাকার আর সাড়ে ৫ লাখ টাকা দেয়া আসামিদের। এ দিন তারা একটি চেকে সাড়ে ৫ লাখ টাকা লিখে রিপনকে দিয়ে দ্রুত ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার পদে নিয়োগ পত্র দেবেন বলে জানিয়ে চলে যান। এরপর আসামিদের সাথে যোগযোগ করতে ব্যর্থ হয় রিপন কুমার। তাদের দেয়া চেক ব্যাংকে জমা দিলে একাউন্টটি বন্ধ আছে বলে জানায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। আসামিরা ঢাকা নিয়ে তাকে নিয়োগ সংক্রান্ত কাগজপত্র দেখিয়েছিলেন তা ছিল ভুয়া ও জালজালিয়াতি। আসামিরা চাকরি দেয়ার নামে পরিকল্পিতভাবে রিপনের কাছ থেকে ৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা আত্মসাত করেছেন। পরবর্তীতে আসামিদের সাথে যোগাযোগ করে টাকা ফেরত চাইলে দিতে অস্বীকার করেন। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

রেমিট্যান্স অর্জনে সপ্তম বাংলাদেশ: বিশ্ব ব্যাংক

বার্তাকক্ষ: গত বছর প্রবাসী আয় থেকে বাংলাদেশ রেমিট্যান্স অর্জন করেছিল ২২ বিলিয়ন ডলার। চলতি বছর...

অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের তিন কর্মকর্তা সাস‌পেন্ড

সুন্দর সাহা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের বদলির পর এবার ব্যাংকের তিন...

এবার মহেশপুর সীমান্তে বিজিবির অভিযানে ৯১ পিস সোনার বারসহ আটক ১

সুন্দর সাহা যশোরের শার্শা-বেনাপোল-ঝিকরগাছা এবং চৌগাছার পর এবার মহেশপুর সীমান্তে বিজিবির অভিযানে বিপুল পরিমাণ সোনার...