Saturday, December 3, 2022
হোম আজকের পত্রিকামৃত মেয়ের টাকা গহনা ও এটিএম কার্ড আত্মসাতের অভিযোগে মা ও বোনের...

মৃত মেয়ের টাকা গহনা ও এটিএম কার্ড আত্মসাতের অভিযোগে মা ও বোনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

গাড়ির নিচে নারীকে টেনে নেওয়া: ঢাবির সাবেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

বার্তাকক্ষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চাকরিচ্যুত শিক্ষকের প্রাইভেটকারে টেনে নেওয়া রুবিনা আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় শাহবাগ...

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণ, নিহত ৩

বার্তাকক্ষ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কাঁথিতে এক তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাতের এ...

বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির নেতার মৃত্যুতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি অভয়নগর থানার একতারপুর গ্রামতলা কমিটির সাবেক সভাপতি...

কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি নিয়ে সতর্কতা ডব্লিউএইচওর

বার্তাকক্ষ কোভিড মোকাবিলায় মানুষের সতর্কতা কমে যাওয়া এই ভাইরাসের মারাত্মক নতুন ভ্যারিয়েন্ট তৈরি করতে...

নিজস্ব প্রতিবেদক
যশোরে মৃত মেয়ের গহনা ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মা ও বোনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। রোববার মৃত নারগিস পারভীন মুক্তার স্বামী ঢাকা পল্লবীর মিরপুর ১২১৬ এর এ-ব্লকের ১১ নম্বর সেকশনের ৮ নম্বর রাস্তার ১৩ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা মৃত শেখ আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে শেখ রাশেদ সুলতান বাদী হয়ে এ মামলা করেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগের তদন্ত করে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলো যশোর উপশহর ডি-ব্লকের ২০৫ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা মৃত শেখ নজরুল ইসলামের স্ত্রী জেবুন্নেছা হাসি ও মেয়ে কনিকা পারভীন কনা। মামলার অভিযোগে জানা গেছে, শেখ রাশেদ সুলতানের শাশুড়ি জেবুন্নেছা হাসি ও স্ত্রীর বড় বোন কনিকা পারভীন। তিনি তার স্ত্রী নারগিস পারভীন মুক্তা ও ছেলে তীর্থকে নিয়ে ঢাকা মিরপুর ১১ নম্বরে বসবাস করতেন। ২০১৩ সালে মুক্তা কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়। ২০১৭ সালে ভারত থেকে সফলভাবে কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয় মুক্তার। এরপর প্রায় প্রতিমাসে মুক্তাকে নিয়ে ভারত যাতায়াত করতে হতো। ভারতের যাতায়াতে মুক্তার সুবিধার্থে যশোর পিতার বাড়ির নিচতলায় ফ্লাট ভাড়া করে ছেলে নিয়ে থাকত। এরমধ্যে মুক্তা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। ভিসার জন্যে তারা করোনা পরীক্ষা করা হয়। এদিন মুক্তা ব্যাংকের এটিএম কার্ড, নগদ ৫ লাখ টাকা, প্রায় ৭ ভরি সোনার গহনা রেখে দেয় তার মায়ের কাছে। মুক্তার করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। ভারতে যাওয়া হয়নি। যশোরে চিকিৎসাধীন অস্থায় চলতি বছরের ৫ মার্চ মুক্তা মারা যায়। এরপর মৃত মুক্তার পিতা তার স্বামীকে দিয়ে এটিএম কার্ডের মাধ্যমে ১ লাখ টাকা তুলেছিল যা পরে পরিশোধ করে দেবে বলে জানিয়েছিল। পরবর্তীতে মুক্তার রেখে যাওয়া টাকা, গহনা ও এটিএম কার্ড ফেরত চাওয়া নিয়ে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয়। গত ২২ জুলাই আসামিরা শেখ রাশেদ ও তার ছেলে তীর্থকে গালিগালাজ করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এসময় স্ত্রীর রক্ষিত টাকা, গহনা ও এটিএম কার্ড চাইলে তারা দিতে অস্বীকার করে। অবশেষে আসামিদের সাথে বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

রেমিট্যান্স অর্জনে সপ্তম বাংলাদেশ: বিশ্ব ব্যাংক

বার্তাকক্ষ: গত বছর প্রবাসী আয় থেকে বাংলাদেশ রেমিট্যান্স অর্জন করেছিল ২২ বিলিয়ন ডলার। চলতি বছর...

অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের তিন কর্মকর্তা সাস‌পেন্ড

সুন্দর সাহা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের বদলির পর এবার ব্যাংকের তিন...

এবার মহেশপুর সীমান্তে বিজিবির অভিযানে ৯১ পিস সোনার বারসহ আটক ১

সুন্দর সাহা যশোরের শার্শা-বেনাপোল-ঝিকরগাছা এবং চৌগাছার পর এবার মহেশপুর সীমান্তে বিজিবির অভিযানে বিপুল পরিমাণ সোনার...