Wednesday, December 7, 2022
হোম আন্তর্জাতিকখেরসনে ইউক্রেনীয়দের জয়, বইছে আনন্দের বন্যা

খেরসনে ইউক্রেনীয়দের জয়, বইছে আনন্দের বন্যা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

সময়োপযোগী পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন

বায়ুদূষণ পরিবেশ ও মানব স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। বায়ুদূষণের অন্যতম উৎস হচ্ছে ধুলাবালি।...

মৈত্রী দিবসের আলোচনায় প্রণয় ভার্মা বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয় ভারত

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীর ক্ষেত্রে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত...

স্কুলে ভর্তি: সরকারিতে এক আসনে ছয় আবেদন, বেসরকারির অধিকাংশ ফাঁকা

বার্তাকক্ষ সরকারি-বেসরকারি স্কুল ভর্তির আবেদন শেষ হয়েছে। সরকারি স্কুলে আসন প্রতি প্রায় ছয়জন করে...

আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৭

বার্তাকক্ষ উত্তর আফগানিস্তানের সবচেয়ে বড় শহরে রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে অন্তত সাত...

বার্তাকক্ষ চলতি বছর ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার ইউক্রেন আগ্রাসন শুরুর পর যে অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিল দেশটি সেই খেরসন আবার তাদের দখলে। তাই বাঁধভাঙা উল্লাস যেন থামছে না। শুক্রবার (১১ নভেম্বর) ইউক্রেনের সেনাদের স্বাগত জানালো আঞ্চলিক রাজধানী খেরসনের বাসিন্দারা।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, খেরসনের বাসিন্দারা পতাকা হাতে রাস্তায় নেমে উল্লাস করছেন ও স্লোগান দিচ্ছেন।
শুক্রবার সন্ধ্যায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আজকের দিনটি একটি ঐতিহাসিক দিন, আমরা দেশের দক্ষিণাঞ্চল ফিরে পাচ্ছি, আমরা খেরসন ফিরে পাচ্ছি’। তিনি আরও জানান, এরইমধ্যে ইউক্রেনের সেনারা শহরে প্রবেশ করেছে।খেরসনের এক বাসিন্দা বলেন, ‘খেরসন এখন মুক্ত। এটি একটি ভিন্ন সকাল। প্রত্যেকে এই সকালের জন্য কেঁদেছে’। তিনি আরও বলেন, ইউক্রেনীয় সেনাদের সবাই আলিঙ্গন করতে চায় এই আনন্দঘন মূহুর্তে।
হোয়াইট হাউজের তরফে বলা হচ্ছে, ‘এটি একটি অসাধারণ বিজয়’।
এদিকে, রাশিয়া জানিয়েছে, খেরসন থেকে ৩০ হাজার সেনা সরিয়ে নিয়েছে মস্কো। তবে কোনও সেনা নিহত হয়নি দেশটির। যদিও ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ ভিন্ন কথা বলছে
ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রি কুলেবা কম্বোডিয়ায় অনুষ্ঠিত শীর্ষ সম্মেলনের এক ফাঁকে বলেন, ‘যুদ্ধ চলছে’। তিনি আরও বলেন, আমরা বুঝতে পারছি যে সবাই এই যুদ্ধের দ্রুত অবসান চায়। এটা অবশ্যই আমাদেরও চাওয়া’।
গত অক্টোবরে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা জোরদার করলে পাল্টা প্রতিরোধ যুদ্ধ শুরু করে ইউক্রেন। সম্প্রতি কিয়েভ জানায়, খেরসনের কাছের অন্তত ৪১টি স্থান পুনর্দখল করেছে ইউক্রেনের সেনারা।
সম্প্রতি ইউক্রেনের অধিকৃত চারটি অঞ্চলের মধ্যে খেরসন একটি যেখানে গণভোটের আয়োজন করে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয় রাশিয়ার পুতিন সরকার। এটি ক্রিমিয়া উপদ্বীপের একমাত্র স্থল রুট যা রাশিয়া ২০১৪ সালে দখল করে এবং দিনিপ্রোর মুখ। দিনিপ্রো ২২০০ কিলোমিটার-দীর্ঘ (১৩৬৭-মাইল) নদী যা ইউক্রেনকে দ্বিখণ্ডিত করে। তবে রাশিয়ার এই গণভোট প্রত্যাখ্যান করে কিয়েভ। পশ্চিমারাও তীব্র নিন্দা জানায় গণভোটের। এমনকি জাতিসংঘ প্রধানও তীব্র নিন্দা জানান এই কথিত গণভোটের। শুধু তাই নয় খেরসন রক্ষায় প্রাণপণ যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয় জেলেনস্কির সরকার।
অবশেষে গত বুধবার খেরসন থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেয় মস্কো। তবে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সে ঘোষণায় উপস্থিত ছিলেন না।
খেরসন থেকে রুশ সেনারা চলে যাওয়ার পর খেরসন এখন ইউক্রেনের সেনাদের দখলে। সেখানকার মানুষদের আনন্দ-উল্লাস যেন থামছেই না। খেরসনের স্থানীয় সম্প্রচার মাধ্যমগুলো আবারও কিয়েভের খবর সম্প্রচার করা শুরু করেছে।
ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ চলছে কয়েক মাস ধরে। ইউক্রেনের প্রধান কয়েকটি অঞ্চল দখলে নিয়েছে রাশিয়া। তবুও দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় মরিয়া ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও তার সেনারা। খেরসন পুনরুদ্ধার ইউক্রেনের জন্য একটি বড় সাফল্য, বলছেন বিশ্লেষকরা।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

মৈত্রী দিবসের আলোচনায় প্রণয় ভার্মা বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয় ভারত

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশের সঙ্গে মৈত্রীর ক্ষেত্রে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত...

আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৭

বার্তাকক্ষ উত্তর আফগানিস্তানের সবচেয়ে বড় শহরে রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে অন্তত সাত...

করোনায় মৃত্যু নেই, শনাক্ত ২২

বার্তাকক্ষ বাংলাদেশে ৫ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে ৬ ডিসেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে কারও...