Thursday, December 8, 2022
হোম অর্থনীতিচার মাসে ৮০ কোটি টাকার রসুন আমদানি

চার মাসে ৮০ কোটি টাকার রসুন আমদানি

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

ব্যাংকিং খাত নিয়ে গুজব

ব্যাংকিং খাত নিয়ে গুজব গ্রাহকের মনে সন্দেহের দানা বেঁধেছে। রটানো হচ্ছে। ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম...

বিএনপির কার্যালয় থেকে বোমা উদ্ধার: পুলিশ

বার্তাকক্ষ রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে বোমা ও ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে বলে...

পুরুষের ফুসফুস, নারীর স্তন ক্যানসার বেশি

বার্তাকক্ষ দেশে ক্যানসার আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। রাজধানীর ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও...

খুলনার সাবেক ডিসি ও ডুমুরিয়ার ইউএনওকে হাইকোর্টে তলব

বার্তাকক্ষ খুলনার ভদ্রা ও হরি নদীতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের আদেশ প্রতিপালন না করায় সাবেক...

বার্তাকক্ষ সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে গরম মসলা আমদানির অনুমতি না থাকলেও পেঁয়াজ, রসুন, আদা ও শুকনো মরিচ আমদানি হয় উল্লেখযোগ্য হারে। এর মধ্যে গত চার মাসে বন্দরটি দিয়ে ৮০ কোটি টাকার বেশি রসুন আমদানি হয়েছে। আমদানীকৃত এসব রসুন স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ হয়
এদিকে জেলার মসলা আড়তগুলোয় রসুনের দাম স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন পাইকার ব্যবসায়ীরা। তবে গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় রসুনের দাম প্রকারভেদে কেজিতে প্রায় ৩০-৩৫ টাকা কম।
ভোমরা শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব শাখা থেকে জানা গিয়েছে, ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম চার মাস জুলাই-অক্টোবর পর্যন্ত এ বন্দর দিয়ে রসুন আমদানি হয়েছে ৫ হাজার ৮৫০ টন। যার আমদানি মূল্য ৮০ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। এখান থেকে সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছে ৪ কোটি ৩ লাখ টাকা। তবে গত অর্থবছরের এই সময়ে এ বন্দর দিয়ে কোনো ধরনের রসুন আমদানি হয়নি বলে জানান বন্দরসংশ্লিষ্টরা।
ভোমরা স্থলবন্দরের অন্যতম মসলা আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স রাফসান এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. আবু হাসান জানান, অনুমোদিত সব ধরনের মসলা পণ্যের পাশাপাশি প্রতি মাসে উল্লেখযোগ্য হারে রসুন আমদানি করে তার প্রতিষ্ঠান। চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস থেকে এখন পর্যন্ত রসুন আমদানি প্রায় ৪ শতাংশ বেড়েছে। সপ্তাহে ২৫ ট্রাক রসুন আমদানি হচ্ছে।
ভোমরা শুল্ক স্টেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার নেয়ামুল হাসান বলেন, মসলা আমদানিতে বেশ ভালো পরিমাণ রাজস্ব আসে। কিন্তু এ বন্দরে সব ধরনের মসলা আমদানির অনুমোদন নেই। গত চার মাসে রসুন আমদানিতে ৪ কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আয় হয়েছে।
সাতক্ষীরার সবচেয়ে বৃহৎ মসলা আড়ত সুলতানপুর বড় বাজারের কয়েকটি পাইকারি প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা গিয়েছে, সম্প্রতি রসুনের দাম স্থিতিশীল। গত এক থেকে দেড় মাসের ব্যবধানের দামে খুব বেশি ওঠানামা লক্ষ্য করা যায়নি।
এ বাজারের মসলা আড়ত মেসার্স জুবায়ের এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী জহুরুল হক জানান, প্রকারভেদে প্রতি কেজি রসুন পাইকারিতে ৫০-৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত এক থেকে দেড় মাস আগেও দাম একই ছিল। তবে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দাম অন্তত ৩০ শতাংশ কমেছে। ওই সময় প্রতি কেজি রসুনের পাইকারি দাম ছিল ৯০-১০০ টাকা।
সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে জানা গিয়েছে, চলতি মৌসুমে জেলায় ৩ হাজার ৫০০ টন রসুন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। সদরসহ সাতটি উপজেলায় ৫০০ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে রসুন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

এলএনজির সরবরাহে আগ্রহী ইতালির রাষ্ট্রীয় কোম্পানি

বার্তাকক্ষ ইতালির রাষ্ট্রীয় জ্বালানি কোম্পানি ইনি এসপিএ বাংলাদেশে এলএনজি সরবরাহে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তারা...

২০৩০ সালে লেদার পণ্যে রপ্তানি হবে ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার: বাণিজ্যমন্ত্রী

বার্তাকক্ষ বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় রপ্তানি পণ্য লেদার। লেদার শিল্পের উন্নয়ন ও...

টাক মাথার চুল গজানোর বিজ্ঞাপনে প্রতারণা, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

বার্তাকক্ষ টাক মাথায় চুল গজানোর মিথ্যা ও চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে আকৃষ্ট করা হতো ক্রেতাদের।...