Friday, December 9, 2022
হোম রাজনীতিঝামেলা না করে ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে সমাবেশের অনুমতি দিন: ফখরুল

ঝামেলা না করে ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে সমাবেশের অনুমতি দিন: ফখরুল

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

১ থেকে ৭, অভিষেকেই চমকে দিলেন পাকিস্তানের তরুণ লেগি

বার্তাকক্ষ ইংল্যান্ডের ব্যাটারদের রীতিমত নাচিয়ে ছাড়লেন ২৪ বছরের আবরার আহমেদ। অভিষেক টেস্টে একাই নিলেন...

শরীরের সবচেয়ে নোংরা স্থান কোনটি?

বার্তাকক্ষ শরীরের সবচেয়ে নোংরা স্থান সম্পর্কে অনেকেরই হয়তো ধারণা নেই। এ কারণেই স্থানটি অযত্নেই...

কালচে হাত-পায়ের উজ্জ্বলতা বাড়াবে যে স্ক্রাব

বার্তাকক্ষ শীতে ঠান্ডা আবহাওয়ায় হাত-পায়ের ত্বক বেশি কালচে হয়ে যায়। এর কারণ হলো শরীরের...

বিয়ের কনেরা দ্রুত ওজন কমাতে পান করুন ‘আমলকি চা’!

বার্তাকক্ষ ওজন নিয়ন্ত্রণে কতজনই না কতকিছু করেন। কেউ ওজন কমানোর রেসে জয়ী হন তো...

বার্তাকক্ষ কোনো ঝামেলা না করে ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে সমাবেশ করার ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, তারা (পুলিশ) সমাবেশের স্থান দেয়নি এখনো। পল্টনে সমাবেশ করার কথা বলা হয়েছে। কোনো ঝামেলা না করে সমাবেশের স্থানের অনুমতি দিন।তিনি বলেন, দায়িত্ব এখন সরকারের বিএনপি নিয়ম মেনে সমাবেশের আবেদন করেছে।
বুধবার (২৩ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন মির্জা ফখরুল। ‘দেউলিয়াত্ব ঘোচাতে দুর্ভিক্ষের নাটক? দেশ কোন পথে’ শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।
মির্জা ফখরুল বলেন, সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্ট না দেখে আওয়ামী লীগ নেতারা মালয়েশিয়া, কানাডা, সিঙ্গাপুরের রঙিন জীবন দেখছেন। আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে দুর্ভিক্ষ হয়। আওয়ামী লীগের যারা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকে তাদের দুর্নীতি ও লুটপাট দুর্ভিক্ষের অন্যতম কারণ।
তিনি বলেন, বিধবা ভাতা বা দুস্থ ভাতার ১০ থেকে ২০ শতাংশ কেটে নেন আওয়ামী লীগ নেতারা। জাতির জন্য বোঝা হয়ে গেছে আওয়ামী লীগ। তাদের সরাতে না পারলে সবাই ডুবে যাবো। জনগণকে রক্ষা করতে দুর্বার আন্দোলনের মধ্যদিয়ে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। শুরু হয়ে গেছে তাদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বাধা দেওয়া। মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাদের আদালতে ব্যস্ত রাখে। সুপরিকল্পিতভাবে দেশের অর্জন নষ্ট করছে আওয়ামী লীগ। দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছেন তারা। এমন কোনো খাত নেই সেখানে দুর্নীতি হয় না।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ অনেক পুরোনো রাজনৈতিক দল, তাদের জনভিত্তি আছে, কিন্তু ক্ষমতার থাকার লালসায় এখন দেউলিয়া হয়ে গেছে।
মির্জা ফখরুল বলেন, নতুন করে গায়েবি মামলা শুরু করেছে। তারা ককটেল ফাটানোর কথা বললো যা কেউ শোনেননি, দেখেনি তা নিয়ে গায়েবি মামলা দিচ্ছে। পুরোনো নাটক শুরু করেছে সরকার। একদিকে মামলা নিয়ে বিএনপিকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা, অন্যদিকে সরকার তার কাজ করে যেতে পারে।
সরকার পতনের আন্দোলন ভিন্নখাতে নিতেই আগুন সন্ত্রাস আর জঙ্গি নাটকের ধুয়া তুলছেন ক্ষমতাসীনরা। দেশে জঙ্গি ছিনতাই নাটক তৈরি করা হচ্ছে— উদ্দেশ্য জনগণের মূল দাবি ভিন্নখাতে নিতে চায় সরকার।
তিনি বলেন, দলীয় সরকার নয়, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। সরকারকে পদত্যাগ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।
নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে সেমিনারে অন্যদের মধ্যে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বক্তব্য দেন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

সমাবেশ ঘিরে ঢাকায় ৭ লাখ মানুষ এসেছে কি না খোঁজ চলছে: ডিবি

বার্তাকক্ষ বিএনপিকে রাজধানীর গোলাপবাগ মাঠে শনিবার (১০ ডিসেম্বর) সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর...

মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে কৃষিমন্ত্রী এ ধরনের বিবৃতি ভবিষ্যতে আর দেবেন না

বার্তাকক্ষ গত ৭ ডিসেম্বর নয়াপল্টনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিবৃতি দেওয়ায় ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে...

সংসদ উপনেতা হচ্ছেন মতিয়া চৌধুরী!

বার্তাকক্ষ আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম...