Thursday, December 1, 2022
হোম আজকের পত্রিকাপ্রথম পাতাপ্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানতে সৌন্দর্য্যরে অপরুপ ছোঁয়া লেগেছে যশোরে

প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানতে সৌন্দর্য্যরে অপরুপ ছোঁয়া লেগেছে যশোরে

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

পুতিনের রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা দেখছে না ইউক্রেন

বার্তাকক্ষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের নেতারা একটি কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে ৯ মাস দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান...

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তানভীর সিকদার

পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন তরুণ কবি তানভীর সিকদার। তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘সেফটিপিনে গেঁথে...

১১২ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিলো ইংল্যান্ড

বার্তাকক্ষ সব শঙ্কাকে পাশ কাঁটিয়ে নির্ধারিত সময়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামে ইংল্যান্ড। বৃহস্পতিবার (১...

আইজিপির নেতৃত্বে আইনের শাসনের ক্ষেত্র প্রস্তুতের আশা বিএনপি মহাসচিবের

বার্তাকক্ষ ‘রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দায়ের বন্ধ করা এবং দায়েরকৃত সব...

সুন্দর সাহা
সৌন্দর্য্যরে অপরুপ ছোঁয়া লেগেছে যশোরে। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে দলের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নগরীতে শত শত তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে শহরের প্রতিটি সড়ক ও মোড়। এছাড়া গোটা শহরজুড়ে নিছিদ্র নিরাপত্তা গ্রহণ করেছে আইনশৃংখলা বাহিনী। যশোরাঞ্চলে অধীর আগ্রহে অপেক্ষমাণ লাখ-লাখ জনতা। যাদের চোখে-মুখে অপার্থিব আনন্দের ঝিলিক। বঙ্গবন্ধুতনয়া শেখ হাসিনাকে শুধু একনজর দেখতে যশোরাঞ্চলসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ছুটে আসা জনতার কণ্ঠে তখন মুহুর্মুহু মুহুমুর্হু স্লোগানে আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত হবে ‘শেখ হাসিনার আগমন, শুভেচ্ছা স্বাগতম’ কিংবা ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’।

প্রত্যাশায় উন্মুখ মানুষগুলোর সুদীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে দীর্ঘ ৫ বছর পর যশোরর মাটিতে পা রাখবেন প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা। এদিন বিকেলে যশোর শাসুলল হুদা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য জনসভায় প্রধানঅতিথির বক্তব্য রাখবেন তিনি। যে জনসভাকে জনসমূদ্রে রূপ দিতে নেতা-কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। প্রচার-প্রচারণার পাশাপাশি প্রস্তুতি ও মতবিনিয় সভা, মিছিল-মিটিং চলছে সর্বত্র। বর্তমান সরকার জনগণের সাফল্যের প্রতীক বলে মনে করেন সাধারন মানুষ। তাইতো প্রধানমন্ত্রীর যশোরের আপামর জনতা তারা আনন্দিত। প্রধানমন্ত্রীকে রাজকীয় অভ্যর্থনা জানাতে সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষমাণ। উৎসবের আমেজে ফুলের পাপড়ি বিছিয়ে, হৃদয়ের সব উষ্ণতা দিয়ে আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনাকে বরণ করবে যশোরবাসী। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষ্যে শহরের বিভিন্ন সড়ক সংস্কার করা হচ্ছে।


যশোরের আকাশে-বাতাসে ধ্বনিত হচ্ছে নতুন দিনের আগমনিবার্তা। লাখ-লাখ মানুষ ভালোবাসায় আপ্লুত হয়ে অধীর আগ্রহে রয়েছে বঙ্গবন্ধুকন্যার বক্তব্য শোনার অপেক্ষায়। জনতার উদ্দেশে তিনি কি বার্তা দেবেন তা নিয়ে চলছে চুলচেরা আলোচনা। একদিকে মাইকে স্বাধীনতার অমর স্লোগান-‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ ধ্বনিতে আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত হচ্ছে। প্রচার মাইকগুলো সাজানো হয়েছে নৌকার আদলে। যশোরাঞ্চলের শহর-গ্রাম সর্বত্র্ই জনতার কণ্ঠে ধ্বনিত হচ্ছে, ‘শেখ হাসিনার আগমন, শুভেচ্ছা স্বাগতম’। সেই সাথে পাল্লা দিয়ে চলছে শহরকে পরিপাটি করে সাজানোর প্রতিযোগিতা। গোটা শহরকে তোরণে মোড়ানো হয়েছে। বিল-বোর্ড, প্লে-কার্ড বাড়তি শোভা বর্ধন করছে। সব মিলিয়ে যশোর সেজেছে অন্যরকম সাজে। প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থল ইতিমধ্যেই নিরাপত্তার স্বার্থে এসএসএফ’র নিয়ন্ত্রণে নেয়া হয়েছে। তার আগে যশোর শামসুল হুদা স্টেডিয়ামকে সাজানো বাহারিরঙে। ১৯৭২ সালের ২৬ ডিসেম্বর এই স্টেডিয়ামে বিশাল জনসমূদ্রে ভাষণ দিয়েছিলেন। অর্ধশতাব্দী পরে আগামী ২৪ নভেম্বর সেই স্টেডিয়ামেই অনুরূপ আরেক জনসভায় প্রধান অথিথির বক্তব্য রাখতে যশোরে আসছেন এমন একজন, যিনি বাঙালি জাতির আশা-আকাঙ্ক্ষার বাতিঘর, অন্ধকারে আলোকবর্তিকা। তিনি আর কেউ নন, জাতীরজনক, বঙ্গবন্ধুর রক্ত ও আদর্শের উত্তরসূরি, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ প্রধান জননেত্রী শেখ হাসিনা। এই জনসমাবেশটিকে ইতিহাসের সর্বকালের সর্ববৃহৎ জনসভায় রূপদিতে কাজ করে যাচ্ছেন দলীয় নেতা-কর্মী-সমর্থকরা।


এ বিষয়ে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার সাবেক সফল মেয়র আরশাফুল আলম লিটন প্রতিদিনের কথাকে বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগের সভাপতি মানবতার মা, জননেত্রী শেখ হাসিনা, আপনি দেশে এসেছিলেন বলেই অবরুদ্ধ গণতন্ত্র শৃঙ্খলামুক্ত হয়েছে। দেশে উন্নয়নের ধারা বইছে। আপনার দৃঢ়তার কারনেই বঙ্গবন্ধু হত্যা ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা, আপনি বাংলাদেশে এসেছিলেন বলেই এই অঞ্চলের মানুষের কল্যাণে পদ্মা সেতু ও মধুমতি সেতু হয়েছে। আপনার পক্ষেই সম্ভব একদিনে শত সেতুর উদ্ভোধন করার মত কর্মযজ্ঞ চালানো। যশোরের মানুষ অধীর আগ্রহে আপনাকে বরণ করার প্রতিক্ষায় রয়েছে। আপনার উপস্থিতিতে এবার অনুষ্ঠিত হবে যশোরের ইতিহাসে স্মরণকালের সেরা জনসভা। জনসমূদ্রে দাঁড়িয়ে আপনি বলবেন আপনার সফলতার কথা। দেবেন আগামী দিনের দিক-নির্দেশনা। যে আদর্শে বলিয়ান হয়ে আমরা আগামী বছরের বৈতরণী পার হতে পারি।”

 

 

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের পদ সংখ্যা বাড়ছে

বার্তাকক্ষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও...

সাতক্ষীরায় স্বর্ণের ১৬ বারসহ পাচারকারী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারকালে ১৬টি স্বর্ণের বারসহ এক যুবককে আটক করেছে...

ডিসেম্বরে শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা, সাগরে হতে পারে দুটি লঘুচাপ

বার্তাকক্ষ তাপমাত্রা ক্রমেই কমে ডিসেম্বর মাসের শেষার্ধে দেশে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে...