Wednesday, February 1, 2023
হোম আন্তর্জাতিকনারী বিক্ষোভকারীদের যৌনাঙ্গে গুলি করছে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী

নারী বিক্ষোভকারীদের যৌনাঙ্গে গুলি করছে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

মিয়ানমারে সেনা শাসনের দুই বছর, জনগণের নীরব প্রতিবাদ

বার্তাকক্ষ ,,দুই বছর হয়ে গেছে মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের। সামরিক শাসন, গনতন্ত্রের অধিকার হরণ ও...

৭ দিনের আয়ে ইতিহাস গড়ল ‘পাঠান’

বার্তাকক্ষ ,,সমালোচকদের দাঁতভাঙা জবাব দিয়ে দুর্দান্তভাবে ফিরলেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। দীর্ঘ চার বছরেরও...

ফিফা কাউন্সিলের নির্বাচনে হেরে গেলেন মাহফুজা আক্তার

বার্তাকক্ষ ,,টানা তৃতীয় মেয়াদে ফিফার কাউন্সিল মেম্বার হওয়া হলো না মাহফুজা আক্তার কিরণের। টানা...

আমি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী না : ঢাবি অধ্যাপক

বার্তাকক্ষ ,,পাঠ্যবই সংশোধনী কমিটিতে সদস্য হিসেবে কাজ করার কোনো আগ্রহ নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকা...

বার্তাকক্ষ:
ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী নারী বিক্ষোভকারীদের মুখ, স্তন ও যৌনাঙ্গে গুলি করছে। হতাহতদের যারা চিকিৎসা করছেন তাদের বরাত দিয়ে দ্য গার্ডিয়ান এ তথ্য জানিয়েছে। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, চিকিৎসক ও নার্সরা গ্রেপ্তার এড়াতে গোপনে বিক্ষোভকারীদের চিকিৎসা করছেন। তারা দেখেছেন প্রায়শই পুরুষদের কাছে বিভিন্ন ক্ষত নিয়ে আসে, যাদের সাধারণত পায়ে, নিতম্বে ও পিঠে শটগানের গুলির ক্ষত ছিল। ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নের কারণে বিক্ষোভকারীদের উপর রক্তাক্ত হামলার অনেকটাই গোপন রয়েছে। গার্ডিয়ানকে চিকিৎসকদের দেওয়া ছবিগুলোতে ছররা গুলিতে বিক্ষোভকারীদের সারাদেহে ক্ষত দেখা গেছে। নিরাপত্তা বাহিনী খুব কাছ থেকে মানুষের উপর গুলি চালিয়েছে বলে এসব ক্ষত থেকে ইঙ্গিত মিলেছে। কিছু ছবিতে দেখা গেছে, কয়েক ডজন ছোট গুলি তাদের মাংসের গভীরে আটকে আছে।
দ্য গার্ডিয়ান ১০ জন চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলেছে, যারা আঘাতের গুরুতর অবস্থা সম্পর্কে সতর্ক করেছে। তারা জানিয়েছেন, এই ছররা গুলিতে শত শত তরুণ স্থায়ী ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে।  মধ্য ইস্পাহান প্রদেশের একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, তার বিশ্বাস কর্তৃপক্ষ পুরুষ ও নারীদের বিভিন্ন উপায়ে লক্ষ্যবস্তু করছে। ‘কারণ তারা এই নারীদের সৌন্দর্য নষ্ট করতে চেয়েছিল।’ তিনি বলেছেন, ‘আমি ২০ বছর বয়সী এক তরুণীর চিকিৎসা করেছি, যার যৌনাঙ্গে দুটি গুলি লেগেছিল। তার উরুতে আরও ১০টি গুলি করা হয়েছিল। এই ১০টি গুলি সহজে অপসারণ করা হয়েছিল, কিন্তু বাকী দুটি গুলি চ্যালেঞ্জ ছিল। কারণ সেগুলি তার মূত্রনালী এবং যোনির মধ্যে আটকানো ছিল। ওই নারীর যোনিপথে সংক্রমণের গুরুতর ঝুঁকি ছিল, তাই আমি তাকে একজন বিশ্বস্ত গাইনোকোলজিস্টের কাছে যেতে বলেছিলাম। আহত ওই নারী চিকিৎসককে জানিয়েছিলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর ১০ জনের একটি দল তাকে ঘিরে ধরেছিল। তারা তার যৌনাঙ্গ ও উরুতে গুলি করলে তিনি প্রতিবাদ করছিলেন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

মিয়ানমারে সেনা শাসনের দুই বছর, জনগণের নীরব প্রতিবাদ

বার্তাকক্ষ ,,দুই বছর হয়ে গেছে মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের। সামরিক শাসন, গনতন্ত্রের অধিকার হরণ ও...

এবার এশিয়ার শীর্ষ ধনীর তকমা হারালেন আদানি, আবারও শীর্ষে আম্বানি

বার্তাকক্ষ ,,বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের তালিকায় কয়েক ধাপ নেমে যাওয়ার পর, এবার এশিয়ার সবচেয়ে ধনী...

রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধ: চীনের সঙ্গে আলোচনায় বসছে যুক্তরাষ্ট্র

বার্তাকক্ষ ,,রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যকার চলমান যুদ্ধ নিয়ে আলোচনায় বসতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন।...