Tuesday, February 7, 2023
হোম রাজনীতিবিকালে সংবাদ সম্মেলন বিএনপির, গোপীবাগ মাঠ নিয়ে চিঠি দেওয়ার প্রস্তুতি

বিকালে সংবাদ সম্মেলন বিএনপির, গোপীবাগ মাঠ নিয়ে চিঠি দেওয়ার প্রস্তুতি

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

উন্মুক্ত হোক মালয়েশিয়া শ্রমবাজার

মালয়েশিয়া শ্রমবাজার নিয়ে দীর্ঘসময় জটিলতা চলছে। বারবার উদ্যোগ নিলেও ফলপ্রসূ হচ্ছে না। দুদিনের সফরে...

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ

বার্তাকক্ষ ,,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০২০ সালের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষ চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ...

আশংকাজনক হারে বাড়ছে মুখের ক্যান্সার

বার্তাকক্ষ ,,বিশ্বে ক্যান্সারে মোট মৃত্যুর কারণের মধ্যে মুখের ক্যান্সার নবম। বিশ্বে সকল ক্যান্সারের মধ্যে...

১২ দিনেই শাহরুখের পাঠানের আয় ৮৩২ কোটি রুপি

বার্তাকক্ষ ,,চার বছর পর ফিরেই একের পর এক রেকর্ড গড়ে চলেছেন শাহরুখ খান। তার...

বার্তাকক্ষ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে মধ্যরাতে বাসা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত দলের স্থায়ী কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। আজ বিকাল ৩টায় গুলশানের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন হবে।
এদিকে, গোপীবাগ মাঠে সমাবেশ করার বিষয়ে ডিএমপিকে লিখিতভাবে অবহিত করতে বিএনপির একজন নেতাকে আহ্বান জানিয়েছে ডিবি। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামালকে চিঠি নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেন।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সূত্র জানিয়েছে, ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশস্থল নিয়ে এখনও সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে আলোচনা চলছে। গতরাতে কমলাপুর স্টেডিয়াম ও মিরপুর বাঙলা কলেজের নাম আলোচনায় থাকলেও পরিদর্শনশেষে বিএনপির পক্ষ থেকে নতুন করে গোপীবাগ মাঠের কথা বলা হয়েছে। আপাতত এই মাঠেই সমাবেশ করতে আগ্রহ প্রকাশ করা হয়েছে।
জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘মধ্যরাতে বিএনপির মহাসচিব ও মির্জা আব্বাসকে তুলে নেওয়ার প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে মূলত গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মারা হয়েছে। যে প্রক্রিয়ায় তাদের তুলে নেওয়া হয়েছে, বন্দি করে নেওয়া হয়েছে তা ইতিহাসের সমস্ত অতীত ছাপিয়ে গেছে।’
এক প্রশ্নের জবাবে ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘যদি আলোচনার জন্যই তাদের ডাকা হয়, তাহলে দারোয়ান দিয়ে কেন তুলে নেওয়া হলো। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যদি মির্জা ফখরুলকে চায়ের নিমন্ত্রণ দিতেন, তাহলে তিনি যেতেন না? মির্জা আব্বাস কী যেতেন না? আসলে তাদের লক্ষ্য হচ্ছে বিএনপির সমাবেশকে বানচাল করা। কিন্তু বিএনপি ১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করবেই।’
ইকবাল হাসান মাহমুদ জানান, বিএনপির মহাসচিব ও মির্জা আব্বাসকে তুলে নেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করবে বিএনপি। শুক্রবার বিকাল ৩টায় গুলশানের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন হবে।’
বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান জানিয়েছেন, ভেন্যু সংক্রান্ত আলোচনা করতে শুক্রবার দুপুর ২টায় ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের অফিসে যাবে আমাদের একটি প্রতিনিধি দল। এতে বিএনপি ভাইস-চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন ও আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল থাকবেন।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

১১ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে শান্তি সমাবেশ করবে আ.লীগ

বার্তাকক্ষ ,,সরকার পতনের আন্দোলনে তৃণমূলের জনগণকে সম্পৃক্ত করতে ইউনিয়ন পর্যায়ে ১১ ফেব্রুয়ারি পদযাত্রার কর্মসূচি...

আমার মন্তব্য ছিল ফখরুলকে নিয়ে, হিরো আলম নয়: কাদের

বার্তাকক্ষ ,,আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, হিরো আলমকে নিয়ে কোনো মন্তব্য ছিল...

রাষ্ট্রপতি প্রার্থী চূড়ান্ত করতে মঙ্গলবার বৈঠকে বসবে আ.লীগ

বার্তাকক্ষ ,,রাষ্ট্রপতি পদে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করতে মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সংসদীয় দলের বৈঠক করবে...