Monday, February 6, 2023
হোম শহর-গ্রামখুলনাখুলনা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে জরাজীর্ণ ভবনে চিকিৎসা

খুলনা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে জরাজীর্ণ ভবনে চিকিৎসা

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

নিপাহ ভাইরাস : সতর্ক হোন

নিপাহ ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। ইতোমধ্যে দেশের ২৮ জেলায় এই ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে বলে...

ফাত্তাহ তানভীর রানার গল্প: প্রেমিকরা-প্রেমিকারা

শিয়া মসজিদ থেকে তাজমহল রোড ধরে একটু সামনে এগোলে রাস্তার ধারে অনেকগুলো বাড়ির মধ্যে...

মাথাপিছু আয় কমে ২৭৯৩ ডলার

বার্তাকক্ষ ,,দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় কমে দুই হাজার ৭৯৩ ডলারে নেমে এসেছে। চূড়ান্ত হিসাবে...

৫ মেডিক্যাল কলেজের কার্যক্রম স্থগিত, একটি বাতিল

বার্তাকক্ষ ,,আইন ও নীতিমালা অনুসারে মানসম্পন্ন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা না করায় পাঁচটি বেসরকারি মেডিক্যাল...

# ৭টি আবাসিক ভবন পরিত্যক্ত # চিকিৎসকসহ জনবল সংকট
খুলনা প্রতিনিধি
খানজাহান আলী থানার মিরেরডাঙ্গা ভৈরব নদীর তীরে অবস্থিত খুলনা বিভাগীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতালের জরাজীর্ণ ভবনে চলছে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম। হাসপাতালে ভর্তিকৃত রোগীরা যেমন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে ঠিক তেমনি চিকিৎসক, নার্স, ওয়ার্ডবয়সহ অন্যান্যরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা প্রদান করছে। ৭ টি আবাসিক ভবন দীর্ঘদিন ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকসহ প্রকট আকারে জনবল সংকট বিরাজ করছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায, স্বাধীনতার পূর্বে ১৯৬৫ সালে ৭ একর জায়গার উপর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি নির্মিত হয়। নামমাত্র কয়েকদফা সংস্কার করা হলেও বড় ধরণের কার্যকরী কোনো সংস্কার করা হয়নি। ৫৭ বছর বয়সী হাসপাতালের ভবনটি বর্তমানে জরাজীর্ণ এবং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রুপ নিয়েছে।


সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের জরাজীর্ণ দ্বিতল ভবনের সবগুলো ওয়ার্ড এবং রুমের ছাদের প্লাস্টার খসে পড়তে শুরু করেছে। ভবনের ছাদ স্যাঁতসেঁতে হয়ে চরম ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা বিরাজ করছে। ইতোমধ্যে খুলনা স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (এইচইডি) থেকে ভবনটি চরম ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় এনে ভবন পুনঃনির্মাণের জন্য প্রাক্কলন তৈরি করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান হাসপাতালের চিকিৎসা তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ জীবিতেষ বিশ্বাস। এছাড়া হাসপাতালের ৭ টি আবাসিক ভবন দীর্ঘদিন ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। ফলশ্রুতিতে হাসপাতালের নার্স এবং স্টাফদের আবাসন সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ৫ জন চিকিৎসক থাকলেও নেই কোন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ২ টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য। আবাসিক চিকিৎসক এর ২ টি পদ, হিসাবরক্ষক, ক্যাশিয়ার, প্যাথলজিষ্ট, রেডিওলজিস্ট, ওয়ার্ল্ড মাস্টার এবং ড্রাইভারের পদটিগুলি দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে নিয়োগকৃত চালক দিয়ে হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্সটি চালানো হচ্ছে। হাসপাতালটিতে কোন সিকিউরিটি গার্ড না থাকায় সর্বদা অরক্ষিত অবস্থায় থাকে। বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত, বিশেষ করে সন্ধ্যার পরে হাসপাতালে বাউন্ডারির ভিতর বহিরাগতদের আড্ডা জমে। বক্ষব্যাধি হাসপাতাল হলেও শুরু থেকে মূলতঃ এখানে শুধুমাত্র যক্ষ্মা বা টিবি রোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। হাসপাতালটিতে ঔষধ প্রতিরোধী যক্ষা রোগের চিকিৎসা করা হয়। বরিশালে এ জাতীয় চিকিৎসা না থাকায় উক্ত বিভাগের এ রোগে আক্রান্ত রোগীরাও হাসপাতালটিতে চিকিৎসা নিতে আসে। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ৩৫ জন যক্ষা বা টিবি রোগী ভর্তি রয়েছে, যাদেরকে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন এন্টিবায়োটিক প্রয়োগ করে চিকিৎসা সেবা প্রদানের মাধ্যমে নেগেটিভ করে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। যাতে রোগটি আর বিস্তার লাভ না করতে পারে জানালেন হাসপাতালের চিকিৎসা তত্ত্বাবধায়ক ডঃ জীবিতেষ বিশ্বাস। জরাজীর্ণ এ হাসপাতালটি পুনঃনির্মাণ করে আধুনিকায়ন করার পাশাপাশি হাসপাতালটি বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউটে রূপান্তরিত করে বিভিন্ন ধরণের বক্ষব্যাধির চিকিৎসার সুযোগ সৃষ্টির দাবি খুলনাবাসীর ।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

১৯৭১- এর নৃশংতার জন্য পাকিস্তানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান

বার্তাকক্ষ ,,১৯৭১-এ বাংলাদেশিদের ওপর চালানো নৃশংসতার জন্য পাকিস্তানকে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে...

‘জনশুমারির চূড়ান্ত প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা কঠিন হয়ে যাচ্ছে’

বার্তাকক্ষ ,,সংসদীয় এলাকার সীমানা পুনর্নির্ধারণে জনশুমারির চূড়ান্ত প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষায় থাকা কঠিন হয়ে যাচ্ছে...

সবাইকে কর দেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বার্তাকক্ষ ,,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে তাদের কর প্রদানের আহ্বান জানিয়ে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে...