Monday, February 6, 2023
হোম আইটিআইফোন-আইপ্যাডে প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপ স্টোর অনুমোদন করবে অ্যাপল

আইফোন-আইপ্যাডে প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপ স্টোর অনুমোদন করবে অ্যাপল

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

নিপাহ ভাইরাস : সতর্ক হোন

নিপাহ ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। ইতোমধ্যে দেশের ২৮ জেলায় এই ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে বলে...

ফাত্তাহ তানভীর রানার গল্প: প্রেমিকরা-প্রেমিকারা

শিয়া মসজিদ থেকে তাজমহল রোড ধরে একটু সামনে এগোলে রাস্তার ধারে অনেকগুলো বাড়ির মধ্যে...

মাথাপিছু আয় কমে ২৭৯৩ ডলার

বার্তাকক্ষ ,,দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় কমে দুই হাজার ৭৯৩ ডলারে নেমে এসেছে। চূড়ান্ত হিসাবে...

৫ মেডিক্যাল কলেজের কার্যক্রম স্থগিত, একটি বাতিল

বার্তাকক্ষ ,,আইন ও নীতিমালা অনুসারে মানসম্পন্ন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা না করায় পাঁচটি বেসরকারি মেডিক্যাল...

বার্তাকক্ষ ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভুক্ত (ইইউ) দেশগুলোয় আইফোন ও আইপ্যাডে প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপ স্টোর অনুমোদন করবে অ্যাপল। ইইউর কঠোর প্রতিযোগিতা নীতির পরিপ্রেক্ষিতে এ পথে এগোচ্ছে মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্টটি। বিষয় সম্পর্কে অবগত কয়েকটি সূত্রের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ব্লুমবার্গ। খবর রয়টার্স।
বিকল্প অ্যাপ স্টোর অনুমোদন অ্যাপলের দ্রুত সম্প্রসারমাণ পরিষেবা ব্যবসার জন্য বড় হুমকি হিসেবে দেখা দিতে পারে। তবে অ্যাপ স্টোরে অ্যাপল ভক্তরা যে নিরাপত্তা উপভোগ করে তা পাশ কাটিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী স্টোরে যাবে কিনা সে প্রশ্ন থেকে যায়।
ডিজিটাল মার্কেটস অ্যাক্ট (ডিএমএ) হিসেবে পরিচিত ইইউ প্রণীত আইনের অন্য ধারাগুলো অ্যাপল মানবে কিনা তা সামনের দিনগুলোয় স্পষ্ট হয়ে উঠবে। তবে মাইক্রোসফট, মেটা ও অ্যামাজনসহ অন্য যে কোম্পানিগুলোর নিজস্ব অ্যাপ স্টোর রয়েছে তারা এর ফল ঘরে তুলতে পারবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।
নতুন নীতিমালা অনুযায়ী, অ্যাপল ভোক্তারা এখন থেকে কোম্পানির অ্যাপ স্টোর ব্যবহার ছাড়াই অন্য অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন না। ডিএমএর অন্যান্য নির্দেশনা মানবে কিনা সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নেয়নি অ্যাপল। বিকল্প পেমেন্ট প্লাটফর্ম ব্যবহার নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ফের জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে বলে শঙ্কা অনেকের। অ্যাপ স্টোর ব্যবহার করে বিভিন্ন পণ্য ও পরিষেবায় ৩০ শতাংশ কমিশন পেয়ে থাকে অ্যাপল। মোবাইল অ্যাপ বিশ্লেষক সংস্থা সেন্সর টাওয়ারের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর অ্যাপ স্টোর ব্যবহার করে ১ হাজার কোটি ডলার লেনদেন হয়েছে। নিজেদের এ লাভজনক ব্যবসা কাটছাঁট করবে কিনা সে বিষয়ে সন্দেহ থেকেই যায়।
ইইউর ডিএমএ ২০২৪ সালের মাঝামাঝি কার্যকর হবে। এ আইনের আওতায়, প্রতিদ্বন্দ্বী কোম্পানির জন্য সুযোগ উন্মোচন করতে হবে প্রযুক্তি জায়ান্টদের। এ নীতিমালা লঙ্ঘন করলে তারা বার্ষিক আয়ের ১০ শতাংশ পর্যন্ত জরিমানার মুখোমুখি হতে পারে।
এদিকে নিজস্ব ইকোসিস্টেমের সাফাইয়ে অ্যাপল জানায়, অ্যাপ স্টোর এড়িয়ে বিকল্প প্লাটফর্ম থেকে অ্যাপ ডাউনলোড ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা বিপন্ন করে। তবে নীতিনির্ধারক ও সমালোচকরা বলছেন, অ্যাপলের এ উদ্বেগ অতিরঞ্জন। সমালোচকদের তালিকায় রয়েছে ফোর্টনাইট গেম নির্মাতা এপিক গেমসের মতো কোম্পানি।
এপিক গেমসের সিইও টিম সুইনি মঙ্গলবার এক টুইটে লিখেন, ইইউর ডিএমএর মতো আইন পাস করা উচিত মার্কিন কংগ্রেসের। এতে কয়েকটি কোম্পানির একচ্ছত্র জমিদারির রাশ টানা যাবে।
গত কয়েক বছর ধরেই অ্যালফাবেট তাদের ইকোসিস্টেমে গুগল প্লে স্টোর ছাড়াও বিকল্প অ্যাপ স্টোর ব্যবহারের সুযোগ দিচ্ছে। তবে প্লে স্টোর থেকেই ৯০ শতাংশ ডাউনলোড সম্পন্ন হয়ে থাকে।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

ই-মেইল পাঠাতে চ্যাটজিপিটি ব্যবহার করবে মাইক্রোসফট

বার্তাকক্ষ ,,ওপেনএআইয়ের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক চ্যাটজিপিটি বর্তমানে প্রযুক্তি খাতের অন্যতম আলোচ্য বিষয়। সম্প্রতি আরেকটি পরিষেবায়...

গেমিং কোম্পানিতে হামলায় নতুন ম্যালওয়্যার

বার্তাকক্ষ ,,বিভিন্ন গেমিং ও গ্যাম্বলিং কোম্পানিকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে নতুন ধরনের ম্যালওয়্যার আক্রমণের অভিযোগ...

মেটাভার্সে পুলিশিংয়ের উপায় খুঁজছে ইন্টারপোল

বার্তাকক্ষ ,,অনলাইন দুনিয়ায় ‘মেটাভার্স’ নতুন ঝুঁকি তৈরি করতে পারে বলে আশঙ্কা করছে ইন্টারপোল। আন্তর্জাতিক...