Tuesday, February 7, 2023
হোম লাইফ স্টাইলপিসিওএসের রোগীরা কেন বেশি প্রোটিনজাতীয় খাবার খাবেন?

পিসিওএসের রোগীরা কেন বেশি প্রোটিনজাতীয় খাবার খাবেন?

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

উন্মুক্ত হোক মালয়েশিয়া শ্রমবাজার

মালয়েশিয়া শ্রমবাজার নিয়ে দীর্ঘসময় জটিলতা চলছে। বারবার উদ্যোগ নিলেও ফলপ্রসূ হচ্ছে না। দুদিনের সফরে...

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ

বার্তাকক্ষ ,,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০২০ সালের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষ চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ...

আশংকাজনক হারে বাড়ছে মুখের ক্যান্সার

বার্তাকক্ষ ,,বিশ্বে ক্যান্সারে মোট মৃত্যুর কারণের মধ্যে মুখের ক্যান্সার নবম। বিশ্বে সকল ক্যান্সারের মধ্যে...

১২ দিনেই শাহরুখের পাঠানের আয় ৮৩২ কোটি রুপি

বার্তাকক্ষ ,,চার বছর পর ফিরেই একের পর এক রেকর্ড গড়ে চলেছেন শাহরুখ খান। তার...

বার্তাকক্ষ ,, প্রতি পাঁচজন নারীর মধ্যে একজন পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিন্ড্রোম বা পিসিওসের সমস্যায় ভুগছেন, এমনটিই জানাচ্ছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
হরমোনজনীত এই সমস্যায় সাধারণ নারী থেকে শুরু করে বলিউডের অনেক অভিনেত্রীরাও ভুগছেন। পিসিওসের সমস্যা দ্রুত নির্ণয়ের পর সঠিক চিকিৎসা নিলে ও জীবনযাত্রায় পরিবর্তন আনলে এই সমস্যা বশে আনা যায়।
সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে খাদ্যতালিকায়। পুষ্টিবিদদের মতে, খাবারে উচ্চ মাত্রায় প্রোটিন ও কম কার্বহাইড্রেট হলো পিসিওএসে আক্রান্তদের জন্য শুধু জরুরি তা ই নয়, বিপাকজনিত সমস্যা কিংবা ঋতুস্রাবজনিত সমস্যা থাকলেও এই ডায়েট কার্যকরী ভূমিকা রাখে।তাই ওষুধের উপর নির্ভরশীল না হয়ে আগে খাবারের তালিকায় প্রোটিন যোগ করলে এই সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি পেতে পারেন।
প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবারের মধ্যে ডিম সবচেয়ে ভালো। জেনে নিন প্রতিদিন খাবারে প্রোটিন রাখলে কী কী সুবিধা মিলবে-
পেট দীর্ঘক্ষণ ভরা থাকে
প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খেলে বেশ কিছুক্ষণের জন্য পেট ভর্তি থাকে। বারবার খিদের অনুভূতি বা খাওয়ার ইচ্ছেও নিয়ন্ত্রণ করে প্রোটিন। এ কারণে অতিরিক্ত খাওয়া নিয়ন্ত্রণ করা যায়, আবার ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও কমে।
রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে
প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার হজম হতেও বেশ সময় লাগে। এর প্রভাবে রক্তে শর্করার ভারসাম্য বজায় থাকে। ফলে ডায়াবেটিসের সমস্যাও নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। পিসিওএস রোগীদের মধ্যে যেহেতু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেশি, তাই আগে থেকেই সতর্ক হতে হবে।
হরমোনের ক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করে
প্রোটিন গ্লুকাগন নামক হরমোনের ক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করে। এই হরমোন শরীরে প্রাকৃতিক ইনসুলিনের কাজ করে। রক্তে হঠাৎ শর্করার পরিমাণ কমে গেলে, তা আবার নিয়ন্ত্রণে আনতে সাহায্য করে এই হরমোন।
সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

বিকেলের নাশতায় রাখুন চিকেন ব্রেড রোল

বার্তাকক্ষ ,,রোল খেতে কে না পছন্দ করেন। হালকা ক্ষুধার বড় সমাধান হলো এই খাবার।...

পায়ে ব্যথা ও চুলকানি হতে পারে কঠিন যে রোগের লক্ষণ

বার্তাকক্ষ ,,অনিয়মিত জীবনধারণের কারণে কম বয়সীদের মধ্যেই দেখা দিতে পারে থাইরয়েডের সমস্যা। এক্ষেত্রে শরীরে...

কিয়ারার রূপ ও ফিটনেসের গোপন রহস্য

বার্তাকক্ষ ,,বলিউড তারকা কিয়ারা আদভানি ও সিদ্ধার্থ মালহোত্রার বিয়ের অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেছে। কয়েক...