Wednesday, February 8, 2023
হোম বিশেষ প্রতিবেদনবাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের অর্ধেকেরও বেশি স্কুলে যায় না: ইউনিসেফ

বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের অর্ধেকেরও বেশি স্কুলে যায় না: ইউনিসেফ

Published on

সাম্প্রতিক সংবাদ

নতুন সিনেমায় বুবলী

বার্তাকক্ষ ,,এরইমধ্যে চলচ্চিত্রে সফলতার সঙ্গেই অর্ধযুগ পার করছেন চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী। এই সময়ে বেশকিছু...

জ্যোতির ‘আগুনের পাখি’

বার্তাকক্ষ ,,সর্বশেষ ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ সিনেমায় অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন জ্যোতিকা জ্যোতি। এবার তিনি...

ঐশ্বরিয়া অন্তঃসত্ত্বা!

বার্তাকক্ষ ,,হেঁটে এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে আসছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। পরনে সাদা...

‘আমার ক্যারিয়ারের ৮০ শতাংশ কৃতিত্ব শাকিবের’

বার্তাকক্ষ ,,ঢালিউডের জনপ্রিয় দুই তারকা শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। অভিনয় জীবনের বাইরে তাদের...

বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের অর্ধেকেরও বেশি স্কুলে যায় না উল্লেখ করে উদ্বেগ জানিয়েছে ইউনিসেফ। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) ইউনিসেফ জানায়, ‘জাতীয় পর্যায়ের নতুন তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের অর্ধেকেরও বেশি কোনও আনুষ্ঠানিক শিক্ষায় নথিভুক্ত নয়।’ইউনিসেফের সহায়তায় বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) পরিচালিত ‘জাতীয় প্রতিবন্ধী ব্যক্তি জরিপ (এনএসপিডি) ২০২১’-এ এসব তথ্য উঠে এসেছে।
জরিপ বলছে, প্রতিবন্ধী শিশুদের (৫ থেকে ১৭ বছর বয়সী) মধ্যে মাত্র ৬৫ শতাংশ শিশু প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং মাত্র ৩৫ শতাংশ শিশু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নথিভুক্ত আছে। মোট ৬০ শতাংশ প্রতিবন্ধী শিশু আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে।সমীক্ষায় আরও উঠে এসেছে যে প্রতিবন্ধী শিশুদের মধ্যে যারা আনুষ্ঠানিক শিক্ষা গ্রহণ করছে, তারা তাদের বয়স অনুপাতে শিক্ষাগতভাবে গড়ে দুই বছরের বেশি পিছিয়ে।
বিবিএসের প্রকল্প পরিচালক ইফতেখাইরুল করিম বলেন, ‘এই প্রথম বিবিএস প্রতিবন্ধী ব্যক্তি-সংক্রান্ত একটি জাতীয় জরিপ পরিচালনা করেছে। এই জরিপ থেকে পাওয়া তথ্য প্রতিবন্ধী শিশুরা বেড়ে ওঠার সময় কত প্রকার চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়, তা তুলে ধরেছে। রিপোর্টে প্রকাশিত তথ্য-উপাত্ত বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য পরিকল্পনা ও উদ্যোগ প্রণয়নে সরকারকে সহায়তা করবে।’জরিপের তথ্য অনুসারে, বাংলাদেশের ১ দশমিক ৭ শতাংশ শিশু ‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩’-এ সংজ্ঞায়িত ১২ ধরনের প্রতিবন্ধিতার অন্তত একটি প্রতিবন্ধিতা নিয়ে বেঁচে আছে। অন্যদিকে ৩ দশমিক ৬ শতাংশ শিশুর অন্তত একধরনের ‘ফাংশনাল ডিফিকাল্টি’ রয়েছে। ফাংশনাল ডিফিকাল্টির বিভিন্ন ধরনের মধ্যে রয়েছে দেখা, শোনা, আঙুল ব্যবহার করে সূক্ষ্ম কাজ করা, যোগাযোগ, শেখা, খেলা বা আচরণ নিয়ন্ত্রণ।
বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট বলেন, ‘বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের মধ্যে কতজন শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, তা তুলে ধরেছে নতুন এই তথ্য। এই শিশুদের জন্য আমাদের আরও অনেক কিছু করা দরকার। আমাদের তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা ও সেবা দিতে হবে এবং এমন একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক পরিবেশ তৈরি করতে হবে, যেখানে তারা উন্নতি করতে পারে।’
জরিপ বলা হয়েছে, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে যারা কাজ করার বয়সী, তাদের মাত্র এক-তৃতীয়াংশ কর্মরত, যেখানে পুরুষদের তুলনায় নারীদের কাজে নিযুক্ত না থাকার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আর যদিও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে যারা সরকারিভাবে নিবন্ধিত, তাদের ৯০ শতাংশ সামাজিক সুরক্ষা হিসেবে ভাতা পান, বেশির ভাগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, প্রায় ৬৫ শতাংশ, অনিবন্ধিত থেকে যায়।

spot_img
spot_img

এধরণের সংবাদ আরো পড়ুন

হিরো আলমকে নিয়ে আ.লীগ-বিএনপির বক্তব্য শিষ্টাচারবহির্ভূত: টিআইবি

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) ও বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা আশরাফুল হোসেন...

গুম ও নির্যাতনের সাম্প্রতিক অভিযোগগুলো তদন্তের আহ্বান এইচআরডব্লিউর

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে গুম ও ধরে নিয়ে নির্যাতনের যেসব অভিযোগ উঠেছে, সেগুলো তদন্ত করতে...

দ্য ইকোনমিস্টের বিশ্লেষণ ‘বেলুন’ নিয়ে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের বাড়াবাড়ি

২০১৮ সালের পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রথম চীন সফরের সমস্ত সম্ভাবনা উবে গেছে ‘গুপ্তচর’ বেলুনকাণ্ডের...