২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ  । ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ 

শেষের গোলে বার্সেলোনার তিন পয়েন্ট

প্রতিদিনের ডেস্ক
নতুন বছরের শুরুটা জয় দিয়েই করলো স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা। পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা ঘিরে ধরলেও সেটা উড়িয়ে দিলো জাভি হার্নান্দেজের দল। লা লিগায় লাস পালমাসের মাঠে ২-১ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। এই জয়ে শিরোপার লড়াইয়ে টিকে থাকলো কাতালান ক্লাবটি। পালমাসের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই বার্সেলোনার জন্য ধাক্কা হয়ে আসে জোয়াও কানসেলোর চোট। একাদশ মিনিটে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন কানসেলো। ঠিক পরের মিনিটেই গোল হজম করে বার্সা। সান্দ্রো রামিরেসের ক্রসে টোকায় জাল খুঁজে নেন সাবেক বার্সা খেলোয়াড় মুনির এল হাদ্দাদি। গোল খেয়ে বার্সেলোনার আত্মবিশ্বাসে যেন ধস নামে। ২৩তম মিনিটে আবারও আক্রমণ করে পালামাস। তবে সান্দ্রোর কাছের পোস্টে নেওয়া শট আটকান ইনাকি পেনা। পাঁচ মিনিট পর গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় এবং ভাগ্যের ছোঁয়ায় দ্বিতীয় গোল হজম করেনি বার্সেলোনা। এর মাঝেই বার্সেলোনাও সমতায় ফেরার ভালো একটি সুযোগ পেয়েছিল। ৩৩তম মিনিটে ডি ইয়ংয়ের লং পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সার্জিও রবের্তো শট না নিয়ে বল বাড়ান ফেরান তোরেসের উদ্দেশে। তবে তোরেসের চেষ্টা ভেস্তে দেন পালমাসের ডিফেন্ডার মিকা মারমোল। প্রথমার্ধে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বার্সেলোনা। দ্বিতীয়ার্ধে ভাগ্য সহায় হয় তাদের। ৫৫তম মিনিটে বল বিপদমুক্ত করতে গিয়ে রবার্ট লেভানডোভস্কির পায়ে তুলে দেন সাউল কোকো। তিনি বল বাড়ান তোরেসকে। বাকি কাজটা অনায়াসে সারেন এই স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড। নির্ধারিত সময়ে আর গোলের দেখা পায়নি কেউ। ম্যাচ গড়ায় যোগ করা সময়ে। তখনই ভাগ্যের ছোঁয়া। বাতাসে ভেসে থাকা বলে হেড করতে গিয়েছিলেন ইলকাই গিনদোয়ান, কিন্তু তাকে পেছন থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে লাল কার্ড দেখেন সিঙ্কগ্রাভেন। স্পট কিকে লক্ষ্যভেদ করেন দলকে তিন পয়েন্ট এনে দেন গিনদোয়ান। এই জয়ে পালমাসের বিপক্ষে এ নিয়ে লিগে বার্সেলোনা ১৫ ম্যাচ অজেয় থাকল। লিগ টেবিলে শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের (৪৮ পয়েন্ট) সঙ্গে ব্যবধানও কমিয়ে আনল। ১৯ ম্যাচে ৪১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে জাভির দল। রিয়ালের সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে জিরোনা।

আরো দেখুন

Advertisment

জনপ্রিয়