ইউনুস এমরের একগুচ্ছ কবিতা

0
10

প্রতিদিনের ডেস্ক:
ইউনুস এমরে (১২৩৮-১৩২০) ছিলেন একজন তুর্কি সুফি আধ্যাত্মবাদী কবি। যিনি আনাতোলিয়ার সংস্কৃতিকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করেছেন। তিনি প্রাচীন আনাতোলীয় তুর্কি ভাষায় অসংখ্য কবিতা লিখেছেন। যা আধুনিক তুর্কি ভাষার প্রারম্ভিক পর্যায় হিসেবে পরিগণিত হয়। সুফি কবিতার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রতিনিধি হওয়ার পাশাপাশি তিনি একজন পণ্ডিত ও লোককবি হিসেবেও পরিচিত। জাগো নিউজের পাঠকের জন্য তার একগুচ্ছ কবিতা অনুবাদ করা হলো।
আমার শুধু তোমাকে দরকার
তুমি আর তোমার ভালোবাসা আমাকে আমার
কাছ থেকে বহু আগেই কেড়ে নিয়েছে,
এখন আমি উপলব্ধি করি, আমার শুধু
তোমাকে দরকার, শুধু তোমাকে…
আমার গত হয়ে যাওয়া দিনগুলো পুড়েছে,
আমি এখন উপলব্ধি করি, তুমি আমার প্রিয়জন,
আমার শুধু তোমাকে দরকার, শুধু তোমাকে…
আমি কীভাবে তোমার অনুপস্থিতি সহ্য করতে পারি?
ইদানীং কোনো কিছুতেই খুশি হতে পারি না আর;
আমি শুধু তোমার প্রেমেই যাবতীয় সান্ত্বনা পাই,
আমার তোমাকে চাই, শুধু তোমাকেই
আমি ইউনুস,
কী যেন এক ভয়ানক রোগে আক্রান্ত!
আমার রোগ; শুধু ক্ষুধা বাড়ে দিন দিন।
ইদানীং শুধায়েছি আমি,
এই সমস্ত জগতে আমার লক্ষ্য একটাই!
‘আমার তোমাকে চাই, একমাত্র তোমাকে পাওয়াই।’
****
ক্বলবের মজমা
মেঘের মতো উড়তে উড়তে হটাৎ আমি
উঠে যাই দীগন্তের নীলিমায়,
উড়ে যাই মহাকাশের মৃত্তিকার শিকড় ছিঁড়ে,
আমার পায়ের নিচে তখন স্বর্গের সোপানরা
চিৎকার করে বলে ওঠে—আমরা দৃষ্টিবান!!
আমি জানি তাঁরা আদতে দেখে না,
যদিও দেখার ভান করে থাকে চিরকাল।
****
ক্বলবের মজমা-২
ইউনুস—আজ ভাবে মাতোয়ারা,
ভালোবাসার দিগ্বিদিকে ছুটে সে পাগলপারা।
আর একা নও তুমি ইউনুস!
আমি তখন এক মনে ছুটে চলি…
কখনো শহর, কখনো নগর কখনোবা পৃথিবীর
সমস্ত রাস্তাঘাট পাড়ি দিয়ে পৌঁছে যাই কাঙ্খিত রাজার দরবারে,
সেখানে মৃত্তিকায় চুমো খেয়ে আবারও একটি নতুন পথের সন্ধানে বেরোই। এরপর, আমি হেঁটে চলি এক মনে… হোক না সেটা বন্য—সমুদ্র কিংবা জঙলে, হোক না জ্বলন্ত সাগর অথবা আরও কিছু… যদি সেখানে আমি পাই, পরম সত্তার প্রার্থিত প্রাসাদ কিংবা প্রাসাদের দুয়ার!
****
জ্ঞানপাপী
জ্ঞানের দাবিদার সে বস্তুত জানে না কিছুই,
জানে না; কার সান্নিধ্য সময়ের অপচয়—ছুটে যায় সে মরীচিকার পিছুপিছু।
বহুদিন পর বিস্ময়ে হতবাক আমি—ঠিক যেন মুসা নবির মতো, পৃথিবীর সমস্ত জ্ঞান যেন এক পাত্রে, আর তার জ্ঞান সমস্ত কিছুর ঊর্ধ্বে,
আমি তাঁর তারিফ আর বাহাদুরি দেখে বিভোর হয়ে যাই,
দাঁড়িয়ে যখন দেখি সিনাই পাহাড় তখন দিগন্তে ফুটছে ফুল অরুণিম ভুল।
****
সুন্দর
তোমার থেকে যা আসে তার সবটুকু সুন্দর।
হোক সেটা ফুল অথবা কাঁটা—জীবন অথবা কাফন।
তোমার দেওয়া দুঃখ সুন্দর, সুখও সুন্দর!
তোমার হৃদয় সুন্দর, তুমিও সুন্দর।