৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ  । ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ 

অবশেষে ল্যাগেজ পাচার সিন্ডিকেটে ডিবি পুলিশের হানা : ৬ লাখ টাকার মালামালসহ তিনজন আটক

সুন্দর সাহা॥ 
অবশেষে যশোর ডিবি পুলিশ ল্যাগেজ পাচার সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার করা প্রায় তিনজনকে বিপুল পরিমান কসমেটিকস সামগ্রীসহ আটক করেছে। আটক তিন জনের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৬ লাখ টাকার মালামালসহ। বৃহস্পতিবার প্রতিদিনের কথায় সংবাদ প্রকাশের পরই চলে এই অভিযান। যশোর ডিবি পুলিশের এসআই খান মাইদুল ইসলাম, এসআই রইচ আহমেদ, এএসআই ইমদাদুল হকের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে যশোর কোতয়ালী মডেল থানার চাঁচড়া মোড় থেকে বেনাপোল চেকপোস্টে গড়ে উঠা ল্যাগেজ পাচার সিন্ডিকেটের পাঠানো এসব মালামাল জব্দ করে। এসময় আটক হয় তিন পাচারকারী। এরা হলেন, কোতয়ালী মডেল থানার বারান্দী মোল্লাপাড়ার লাল মিয়ার ছেলে মোঃ হৃদয় হোসেন (২০), বেনাপোল পোর্ট থানার গাতীপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী মোসাঃ বিউটি খাতুন(৪২) এবং শার্শা উপজেলার পারুইঘুপি গ্রামের আশানুর হোসেনের তালাক দেয়া স্ত্রী মোসাঃ আসমা খাতুন @ তানজিলা (২৯)। আটক তিন জনের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৬ লাখ টাকার মালামালসহ। বেনাপোলের সূত্রগুলো জানায়, কাস্টম-বিজিবিসহ সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করে এ সিন্ডিকেট চালিয়ে যাচ্ছে সোর্স ইমরান, সোহাগ, সাকিব, কামাল, ও আাহসানস গং। এ সিন্ডিকেটের গডফাদার মেম্বার সিণ্ডিকেটের কারনে সরকার হারাচ্ছে শত শত কোটি টাকা রাজস্ব। স্থানীয়দের বাদী মেম্বার সিণ্ডিকেটের সাগরেদ সোর্স ইমরান, সোহাগ, সাকিব, কামাল ও আাহসান গংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে কমে যাবে ল্যাগেজ পাচার। জানা যায়, প্রতিদিন সকালে ভারত থেকে ৪/৫ শত ভারতীয় নাগরিক বিজনেস ভিসায় বাংলাদেশে প্রবেশ করে। তারা সকালে এসে বিকালে চলে যায়। প্রবেশের সময় একজনে ৩টা করে ব্যাগ নিয়ে আসে যে ব্যাগে থাকে শাড়ি থ্রিপিস কসমেটিক্স ইমিটেশনসহ বিভিন্ন ধরনের মালামাল। গতকাল যশোর ডিবি পুলিশ এই চক্রের তিনজনকে বিপুল পরিমান কসমেটিকস সামগ্রীসহ আটক করেছে। আটক তিন জনের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে বিপুল পরিমাণ মালামাল। যার মধ্যে রয়েছে, ২৮০ পিস ডাভ সাবান, ১৭৫ পিচ ফিয়ামা সাবান, ৪০ পিচ মারগো সাবান, ৭১০ বোতল দুলহান তেল, ৪টি ডাভ সেম্পু, ৫টি ট্রেসমি সেম্পু, ৮০ পিচ ফিয়ামা সাওয়ার জেল, ৪০ পিচ ফগ বডি স্প্রে, ১৫০ পিচ পন্ডস্ ব্রাইট বিউটি ফেসওয়াস। জব্দকৃত আলামতের সর্বমোট মূল্য ৫ লাখ ৭০ হাজার ৩০০ টাকা এ ব্যাপারে ডিবির এসআই খান মাইদুল ইসলাম রাজিব যশোর কোতয়ালী মডেল থানায় এজাহার দায়ের করেন। এই চক্রের সাথে অনেক বাংলাদেশীরাও সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে কাস্টমস ও বিজিবিকে ম্যানেজ করে মালামাল নিয়ে আসে। তাদের আনা মালামাল গুলো কাস্টমস ও বিজিবি আটক করার কথা কিন্তু চুক্তি থাকার কারনে সে গুলো আটক করা হয় না। বিজনেস ভিসায় আসা ভারতীয় পাসপোর্ট যাত্রী অলক ধর বলেন পেট্রাপোল বর্ডার থেকে লাল্টু নামে এক চোরাকারবারীর ৩টি ব্যাগ নিয়ে এসেছি বেনাপোল চেকপোস্টে সোহাগের (হিজরা সোহাগ) কাছে দিতে বিনিময় পাবো ভারতীয় ৩ হাজার রুপি প্রায় এক সাথে লাল্টুর পাঠানো ২৫ জন এসেছি।’ সোহাগ ও ইমরানের মালামাল নিয়ে। ইমরান নিজেকে বিজিবির সোর্স পরিচয় দিয়ে থাকেন। সে আরো জানান বাংলাদেশে প্রবেশের পর বিজিবির স্কানার ও কাস্টমসের স্কানারে সোহাগ, ইমরান, সাকিব, কামাল, ও আাহসানসহ এই চক্রের হোতারা দাঁড়িয়ে থেকে পার করে দেওয়ার পর প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের সামনে বিজিবির টেবিলে সুবেদার থাকলে অন্য বিজিবির সদস্যরা ব্যাগ ধরে টানাটানি করতে থাকে। আর সুবেদার না থাকলে বা নিয়মিত হিস্যা না দিলে নিরীহ পাসপোর্ট যাত্রীদের ব্যাগ ধরে টানাটানি করে। এই চক্রের মূল হোতা মেম্বার সিণ্ডিকেটের প্রধান আলোচিত সোনা, মাদকসহ ল্যাগেজ পাচারকারী একজন সাবেক মেম্বার। তার হয়ে, এই সিণ্ডিকেটের পরিচালনা করে, সোর্স ইমরান, সোহাগ, সাকিব, কামাল ও আাহসান। এদের হয়ে বর্ডারে কাজ করে জনাব আলী, হাসান, সোহেল, জুয়েল, জালাল, সাহেব আলী, সাকিব, লাবলু, রাজু, ফরিদ, ইহান নবী, সাহাবুদ্দীন, ইব্রাহিম, কোরবান। এই সিন্ডিকেটের সদস্যরা সকালে কাস্টমসের ভিতর ঢুকে আর সন্ধ্যায় বের হয় সারাদিন ধরে ল্যাগেজ পারাপার করে থাকে। কাস্টমস, বন্দরের এবং বিজিবির সিসি ক্যামেরা চেক করলে সব দেখা যাবে। চেকপোস্টে দায়িত্বরত কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা মকলেসুর রহমান ও সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা নায়িমের সহযোগিতায় মেম্বার সিণ্ডিকেটের ইমরান, সোহাগ, সাকিব, কামাল, ও আাহসান গং এ ব্যবসা করে যাচ্ছেন ল্যাগেজ পাচার সিন্ডিকেট সদস্যরা। এদিকে বতর্মানে কি পরিমাণ পাসপোর্ট যাত্রী ল্যাগেজ পাচার সিন্ডিকেটে জড়িয়ে পড়েছে তার প্রমাণ মেলে যশোর ডিবি পুলিশের অভিযানে জব্দ করা মালামালের চিত্রে। এ ব্যাপারে বেনাপোল চেকপোস্টে দায়িত্বরত কাস্টম এবং আইসিপি ক্যাম্পের কর্মকর্তা বিজিবি সদস্যরা দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিলে ল্যাগেজ পার্টির দৌরাত্ম কমবে বলে বেনাপোল বন্দর ব্যবহারী ব্যবসায়ীদের অভিমত।

আরো দেখুন

Advertisment

জনপ্রিয়